নয়াদিল্লি: দিল্লিতে ফের ধর্ষণের ঘটনা ঘটল। কিন্তু এই ঘটনার তদন্তে কী ভাবে এগোবে তারা, সেই ব্যাপারে ধন্ধে পুলিশ। কারণ এখানে যে সাড়ে চার বছরের এক শিশু অভিযুক্ত।

গত শুক্রবার দ্বারকার একটি স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে বাবা-মায়ের সামনে কান্নায় ভেঙে পড়ে ওই শিশুকন্যা। প্রথমে বলতে না চাইলেও পরে বাবা-মাকে সব কিছু খুলে বলে সে। শিশুকন্যার মা পুলিশকে জানিয়েছেন, আঙুল এবং ধারালো পেনসিল ব্যবহার করে তাকে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।

মায়ের দাবি, এই নির্যাতনের ফলে মেয়েটির গোপনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

কিন্তু এই ঘটনার তদন্ত কী ভাবে করা হবে সেই নিয়ে ধন্ধে পুলিশ। এই ব্যাপারে আইনজ্ঞের পরামর্শ নিচ্ছে দিল্লি পুলিশ। দিল্লি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার বলেন, “যে হেতু একটা অপরাধ হয়েছে এবং এক জন যেহেতু এই ঘটনার শিকার হয়েছে তাই ‘যৌন নিগ্রহ থেকে শিশুদের সুরক্ষা’ (পস্কো) আইনে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।” ওই শিশুকন্যার মায়ের অভিযোগ, পুলিশে অভিযোগ জানানোর আগে স্কুল কর্তৃপক্ষকেও এই ঘটনার ব্যাপারে বলা হয়েছিল। কিন্তু তারা বিশেষ গুরুত্ব দেয়নি।

তবে অত্যন্ত সংবেদনশীল ভাবে এই ঘটনার তদন্ত করার জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

এক চিকিৎসক, ডাঃ সমীর পারিখ বলেন, “আমাদের বোঝা উচিত যে একজন শিশুর পক্ষে মানুষের যৌন আচরণ বোঝার কোনো ক্ষমতা থাকে না। শিশুটির কোনো যৌন আকাঙ্ক্ষাও থাকতে পারে না।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here