sushma swaraj

ওয়েবডেস্ক: লখনউয়ের হিন্দু-মুসলিম দম্পতিকে পাসপোর্ট দেওয়ার ব্যাপারে সাহায্য করেছিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। তার পর নিজের দলের কর্মী সমর্থকদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে যে তাঁকে ট্রোল করা হয়েছে সেটাও কারও অজানা নয়। কিন্তু ঘটনা হল, অন্তত ৪১ জন বিজেপি মন্ত্রী-সাংসদ এই সুষমার ট্রোলবাজদের ফলো করেন টুইটারে।

এমনটাই জানা গিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমসের করা একটি রিপোর্টে। এই ৪১ জনই টুইটারে অন্তত একটা করে অ্যাকাউন্ট  ফলো করেন, যেখান থেকে সুষমাকে ট্রোল করা হয়েছিল। শুধু তা-ই নয়, এর মধ্যে অন্তত আটটা অ্যাকাউন্টকে ফলো করেন স্বয়ং নরেন্দ্র মোদী। তবে এটাও ঠিক, ট্রোলবাজদের ফলো করা মানেই যে সুষমার বিরুদ্ধে করা ট্রোলগুলি তারা সমর্থন করছে এমনটা নয়।

সুষমাকে ট্রোল করে অন্তত ২১১টা টুইট করা হয়েছিল। সেগুলি ১৬৯টা অ্যাকাউন্ট থেকে এসেছিল। তবে ব্যাপারটাকে খুব ক্রীড়াসুলভ মনোভাবেই নিয়েছেন সুষমা। অন্য দের দেখানোর জন্য সেই সব টুইটকে তিনি ‘লাইক’ও করেন। এই প্রসঙ্গে সুষমা রবিবার একটি টুইট করে বলেন, “১৭ থেকে ২৩ জুন আমি বাইরে ছিলাম। আমার অনুপস্থিতিতে কী হয়েছে আমি জানি না। তবে এটা ঠিক যে কিছু কিছু টুইটে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি। আপনাদের দেখানোর জন্যই আমি সেগুলি ‘লাইক’ করলাম।”

পাসপোর্ট কাণ্ডের উৎপত্তি গত সপ্তাহে লখনউয়ের একটি ঘটনায়। যেখানে হিন্দু-মুসলিম এক দম্পতিকে পাসপোর্ট দিতে অস্বীকার করেছিলেন এক পাসপোর্ট আধিকারিক। মুসলিম স্বামীকে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করারও ‘পরামর্শ’ দেন তিনি। এর পরেই বিতর্ক তৈরি হতে নড়েচড়ে বসে পাসপোর্ট অফিস। ওই দম্পতিকে পাসপোর্ট দেওয়া হয় এবং বদলি করে দেওয়া হয় ওই অফিসারকে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here