এডিআরের তথ্য, নতুন লোকসভায় কমল স্বচ্ছ ভাবমূর্তির সাংসদদের সংখ্যা

0
parliament
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

ওয়েবডেস্ক: ভারতের গণতান্ত্রিক কাঠামোর সব থেকে গর্বের স্থান সংসদ। সংসদের নিম্নকক্ষ, লোকসভায় কিছু দিনের মধ্যেই বসতে চলেছেন নবনির্বাচিত সাংসদরা। দেশের বিভিন্ন প্রান্তের কথা তুলে ধরবেন তাঁরা। এক একজন সাংসদ, তাঁর এলাকার মানুষের প্রতিনিধি হয়ে বার্তা পৌঁছে দেবেন সর্বোচ্চ স্তরে। কিন্তু সাধারণ মানুষের প্রতিনিধি যাঁরা হয়েছেন, তাঁদের কত জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে, সেটা জানলে চোখ কপালে ওঠার জোগাড়।

নির্বাচন সংক্রান্ত পর্যবেক্ষণ সংস্থা অ্যাসোসিয়েশন অব ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস (এডিআর) যে তথ্য তুলে ধরেছে, সেটা বিপদেরই বার্তা দিচ্ছে।

ফৌজদারি মামলা

৫৪৩ আসনের মধ্যে গত ২৩ মে জিতে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন ৫৩৯ জন। এঁদের মধ্যে ২৩৩ জন এমন সাংসদ রয়েছেন, যাঁদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। ২০১৪ সালে এই সংখ্যাটা ছিল ১৮৫, অর্থাৎ ৩৪ শতাংশ। তার পাঁচ বছর আগে, সংখ্যাটা ছিল ১৬২, অর্থাৎ ৩০ শতাংশ। ২০০৯ থেকে ২০১৯, এই দশ বছরে ফৌজদারি মামলা থাকা সাংসদদের সংখ্যা বেড়েছে ৪৪ শতাংশ।

গুরুতর অপরাধে লিপ্ত

এর মধ্যে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে ১৫৯ জন, অর্থাৎ ২৯ শতাংশ সাংসদের বিরুদ্ধে। ধর্ষণ, খুন, খুনের চেষ্টা, অপহরণ এবং নারীদের বিরুদ্ধে হিংসার মামলা ঝুলছে তাঁদের বিরুদ্ধে। ২০১৪ এবং ২০০৯ সালে এই সংখ্যাটা ছিল যথাক্রমে ১১২ (২১ শতাংশ) এবং ৭৬ (১৪ শতাংশ)। অর্থাৎ গত দশ বছরে গুরুতর অভিযোগের মামলা থাকা সাংসদদের সংখ্যা বেড়েছে ১০৯ শতাংশ।

এর মধ্যে সব থেকে বেশি মামলা রয়েছে কেরলের ইদুকি কেন্দ্রের কংগ্রেসের নবনির্বাচিত সাংসদ ডিন কুরিয়াকোজের বিরুদ্ধে। তাঁর বিরুদ্ধে ২০৪টি মামলা রয়েছে। অনিচ্ছাকৃত খুন, ডাকাতি এবং অপরাধমূলক ভীতি প্রদর্শনের মামলাও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন ৩০ মে, সন্ধ্যা ৭টায় প্রধানমন্ত্রীপদে শপথ নিচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী

এডিআর বিশ্লেষণ করে জানিয়েছে অপরাধমূলক মামলা থাকা প্রার্থীদের জয়ের সম্ভাবনা ১৫.৫ শতাংশ। কিন্তু স্বচ্ছ প্রার্থীদের জয়ের সম্ভাবনা মাত্র ৪.৭ শতাংশ।

কোটিপতি সাংসদ

প্রার্থীদের হলফনামা ঘেঁটে কোটিপতি সাংসদের তথ্যও বের করেছে এডিআর। সেখানে দেখা যাচ্ছে এ বার জয়ী সাংসদের মধ্যে ৪৭৫, অর্থাৎ ৮৮ শতাংশ সাংসদ কোটিপতি। ২০১৪ সালে সংখ্যাটা ছিল ৪৪৩, অর্থাৎ ৮২ শতাংশ। ২০০৯ সালে সংখ্যাটা ছিল ৩১৫, অর্থাৎ ৫৮ শতাংশ। কোটিপতি প্রার্থীদের জয়ের সম্ভাবনা ২১ শতাংশ, কিন্তু কোটিপতি নয়, এমন প্রার্থীদের জয়ের সম্ভাবনা ১ শতাংশেরও কম।

সম্পত্তি বৃদ্ধি

এ বার সাংসদে যে ২২৫ জন সাংসদ পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন, তাঁদের সম্পত্তি গত পাঁচ বছরে ১৭.৭ কোটি থেকে বেড়ে হয়েছে ২১.৯৪ কোটি। অর্থাৎ, সম্পত্তি প্রায় ২৯ শতাংশ বেড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here