নয়াদিল্লি: গত কয়েক দিন ধরেই মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন অঞ্চলের তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে। তাপপ্রবাহের জেরে মৃত্যু হল পাঁচ জনের। অতিরিক্ত তাপের প্রভাবে হিটস্ট্রোকের শিকার হন পাঁচ ব্যক্তি। মহারাষ্ট্রের মধ্য এবং উত্তর অংশের পরিস্থিতি শোচনীয়। সম্প্রতি রায়গড়ের ভিরা গ্রামে রেকর্ড তাপমাত্রা উঠেছিল ৪৬.৫ ডিগ্রি। দেশের আবহাওয়া বিভাগ থেকে খবরের সত্যতা যাচাইয়ে লোক পাঠানো হচ্ছে ভিরায়।

মহারাষ্ট্রের আকোলার তাপমাত্রা ছুঁয়েছে ৪৪.১ ডিগ্রি। এ ছাড়া ওয়ার্ধা, নাগপুর, চন্দ্রপুরের তাপমাত্রাও ৪৩ ডিগ্রির কাছাকাছি। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলেই ক্রমশ চড়ছে তাপমাত্রার পারদ। রাজস্থানের বারমেরের তাপমাত্রা ইতিমধ্যে ছুঁয়েছে ৪৩.৪ ডিগ্রি। পাঞ্জাবের লুধিয়ানার তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ৭ ডিগ্রি বেশি।গুজরাতের বিক্ষিপ্ত অঞ্চলেও চলছে তাপপ্রবাহ। আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে সেখানে।  ”সৌরাষ্ট্র এবং কচ্ছ অঞ্চল ইতিমধ্যে তাপপ্রবাহ মুক্ত”, জানালেন আবহাওয়া দফতরের আধিকারিক মনোরমা মহান্তি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত সোমবার আমেদাবাদের তাপমাত্রা (৪২.৮ ডিগ্রি) রেকর্ড ভেঙেছে সাত বছরের মার্চ মাসের তাপমাত্রার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here