Students
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: স্কুলের দেওয়ালে কেউ বা কারা লিখেছিল প্রেমের জবানবন্দি। সেখানেই জুড়ে দিয়েছিল পাঁচ ছাত্রীর নাম। তা প্রকাশ্যে আসার পর পড়ুয়াদের মধ্যে যথারীতি শুরু হয় আলোড়ন। জানতে পারে ওই পাঁচ ছাত্রীরাও। তার পর যে সিদ্ধান্ত তারা নিয়ে ফেলল, তা তাদের মৃত্যুর মুখে পৌঁছে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। তবে বর্তমানে সপ্তমশ্রেণিতে পাঠরতা ওই পাঁচ ছাত্রী ভরতি রয়েছে হাসপাতালে।

এমনই এক মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে তামিলনাড়ুর ভিল্লুপুরমের একটি আদিবাসী স্কুলে। পাঁচ ছাত্রীর নামে জুড়ে দেওয়া সেই প্রেমের স্বীকারোক্তি বার্তা চোখে পড়ার পরই তারা কীটনাশক এবং বিষাক্ত ফল খেয়ে ফেলে। তবে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাটি জানতে পারায় স্কুল কর্তৃপক্ষ পাঁচ জনকেই হাসপাতালে ভর্তি করেন।

পুলিশ সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছে, ওই ছাত্রীরা স্কুলের দেওয়ালে প্রেমের জবানবন্দিতে নিজেদের নাম দেখার পরই কীটনাশক এবং বিষাক্ত ফল খেয়ে নিজেদের জীবন শেষ করে দিতে চেয়েছিল। আসলে ও ভাবে দেওয়ালে নিজেদের নাম দেখে অপমানের গ্লানি মুছে ফেলতেই এমন মারাত্মক সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে ওই সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীরা।

আরও পড়ুন: আমেরিকার সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে ১০ কোটি মোবাইল বাজারে ছাড়তে পারে রিলায়েন্স জিও

পুলিশ জানিয়েছে, আরালি নামের একটি ফুলের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে পান করতে পারে ওই পাঁচ ছাত্রী।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here