bsf jawan killed

ওয়েবডেস্ক: রমজান মাসের কথা মাথায় রেখে উপত্যকায় সংঘর্ষবিরতির কথা ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র। কিন্তু শান্তির সেই বার্তা সম্ভবত পাকিস্তানের কানে পৌঁছোয়নি। বৃহস্পতিবার রাত থেকে সীমান্তের গ্রামগুলিতে লাগাতার গোলাবর্ষণ শুরু করে তারা। এর ফলে বিএসএফের এক জওয়ান ছাড়াও মৃত্যু হয়েছে চার জন সাধারণ নাগরিকের।

বৃহস্পতিবার রাত থেকে জম্মুর আরএস পুরা সেক্টরে সীমান্তের গ্রামগুলি লক্ষ করে গুলি চালাতে শুরু করে পাক রেঞ্জার্স। রাত দেড়টা নাগাদ একটি গোলা এসে লাগে বিএসএফের কনস্টেবল সীতারাম উপাধ্যায়ের শরীরে। সঙ্গে সঙ্গে জম্মুর একটি হাসপাতালে তাঁকে স্থানান্তিরত করা হলেও পথেই তাঁর মৃত্যু হয়। ঝাড়খণ্ডের গিরিডিতে এই জওয়ানের বাড়িতে। স্ত্রী ছাড়াও তাঁর পরিবারে রয়েছে তিন বছরের পুত্র এবং এক বছরের কন্যা।

পাশাপাশি আরএস পুরা সেক্টরে চান্দু চাক গ্রামে বাড়ির সামনেই পাক গোলা এসে পড়লে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় জনৈক তাসরীম লাল এবং তাঁর স্ত্রী মানজোৎ কৌরের। সেই সঙ্গে পার্শ্ববর্তী তেরোয়া গ্রামেও পাক গোলা এসে পড়লে মৃত্যু হয় আরও দুই বাসিন্দার।

বৃহস্পতিবার সারা রাতই আরএস পুরা সেক্টরে গোলাগুলি চলেছে। বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গিয়েছে জম্মু শহর থেকেও। সীমান্ত লাগোয়া গ্রামগুলিতে ইতিমধ্যেই মানুষদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। সীমান্তের পাঁচ কিমি মধ্যের স্কুলগুলি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন