রেওয়া (মধ্যপ্রদেশ) : মাত্র মাস খানেকের ব্যবধান। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের ডাক্তারেরা এক জন রোগীর পেট কেটে বের করছিলেন ৬৪৯টা পেরেক। গোবরডাঙ্গার সেই ব্যক্তি মানসিক ভাবে অসুস্থ ছিলেন। সেই একই রকম ঘটনা ঘটল মধ্যপ্রদেশের রেওয়া জেলার সঞ্জয় গান্ধী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে (এসজিএমসিএইচ)। এখানে ৩২ বছরের মহম্মদ মাকসুদের পেট থেকে বের করা হল ৫ কিলোগ্রাম ওজনের লোহার নানা জিনিস। তার মধ্যে রয়েছে ২৬৩টা কয়েন, দাড়ি কাটার ১২টা ব্লেড, ৪টে বড়ো ছুঁচ, ১টা চেন সঙ্গে কাঁচের টুকরোও।

এসজিএমসিএইচ-এর চিকিৎসক প্রিয়াঙ্ক শর্মা বলেন, এই মহম্মদ মাকসুদ সান্তা জেলার সোহভলের বাসিন্দা। পেটের ব্যাথায় কষ্ট পাচ্ছিলেন মাকসুদ। হাসপাতালে আসার পরই পেটের বিভিন্ন পরীক্ষা করানো হয়। তাতেই এক্স-রেতে ধরা পরে পেটে কিছু আছে, তার ফলেই ব্যথা হচ্ছে। এর পর ৬ জন চিকিৎসকের একটা দল মাকসুদের পেটে অস্ত্রোপচার করেন। তাতেই এই সমস্ত জিনিস পাওয়া যায়।

হাসপাতালে আসার আগে তাঁকে সান্তা জেলাতেই ডাক্তার দেখানো হয়েছে টানা ছ’মাস।

ডাক্তার শর্মা বলেন, মাকসুদের মানসিক ভারসাম্য ঠিক নেই। তিনি চুপিচুপি ওই সব জিনিস গিলে ফেলতেন। আপাতত বিশেষজ্ঞের একটি দল তাঁর চিকিৎসা করছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here