election commission

ওয়েবডেস্ক: সারা দেশের বিভিন্ন ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (আইআইটি)-র ৫০ জন প্রাক্তনী এক ঝটকায় চাকরি ছাড়লেন। তফসিলি জাতি, উপজাতি এবং অন্যান্য পিছিয়ে পড়া শ্রেণির মানুষের মানোন্নয়নের লড়াইয়ে শামিল হতে তাঁরা নতুন একটি রাজনৈতিক দল গঠনের স্বার্থে কর্মক্ষেত্র থেকে স্বেচ্ছাবসর নিলেন।

আইআইটি-র ওই ৫০ প্রাক্তনীর ইতি মধ্যেই নির্বাচন কমিশনের কাছে নতুন দলের স্বীকৃতি আদায়ে আবেদন জমা করেছেন। তাঁদের প্রস্তাবিত দলটির নামকরণ করা হয়েছে ‘বহুজন আজাদ পার্টি’।

২০১৫ সালে দিল্লি আইআইটির স্নাতক নবীন কুমার এই দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি জানিয়েছেন, “আমরা ৫০ সদস্যের এই দল সরাসরি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যে কারণে একত্রে চাকরিটাও ছেড়ে দিলাম। কারণ রাজনৈতিক দলের কাজেই পুরোপুরি মনোনিবেশ করতে চাইছি”।

bap

তবে রাজনৈতিক দলের স্বীকৃতি মিলে গেলেই তড়িঘড়ি নির্বাচন প্রক্রিয়ায় তাঁরা অংশ নেবেন না বলেই জানিয়েছেন। নিজেদের কর্মকাণ্ডকে সুদূরপ্রসারী করে তুলতে দীর্ঘ চিন্তাভাবনার মধ্যে দিয়েই তাঁরা অগ্রসর হতে চান। নবীন জানান, “আপাতত স্থির করেছি আগামী ২০২০ সালের বিহার বিধানসভা নির্বাচনে আমাদের দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। ফলে এ বারের লোকসভা নির্বাচনে নয়, তার পরের লোকসভায় আমরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব”।

ওই ৫০ জনের দল ইতি মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারের কাজে নেমে পড়েছে। ড. বি আর আম্বেডকর, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু এবং এ পি জে আবদুল কালামের ছবি সম্বলিত বেশ কিছু দাবি-দাওয়া ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপে ছড়িয়ে দিচ্ছে তারা। তবে পুরোটাই চলছে প্রাথমিক ভাবে। নতুন রাজনৈতিক দলের সরকারি স্বীকৃতি মিলে যাওয়ার পরই বৃহৎ কর্মসূচি নেওয়া হবে বলে নবীন জানান।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here