ভারতে করোনার আঁতুড়ঘর হয়ে ওঠা রাজ্যে সোমবার সংক্রমণ ছিল ২০২০ সালের ২৬ এপ্রিলের পর সব থেকে কম

0

মুম্বই: ভারতে করোনার আঁতুড়ঘর মহারাষ্ট্র। গত বছর এপ্রিল থেকেই সে রাজ্যে ভয়াবহ ভাবে বাড়তে শুরু করেছিল সংক্রমণ। যখন অন্যান্য রাজ্যে করোনা সে ভাবে থাবা বসায়নি, তখন থেকে মহারাষ্ট্রে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি। এমনকি ২০ শতাংশের কাছাকাছি থাকা সংক্রমণের হার বুঝিয়ে দিয়েছিল ওই রাজ্যে কী ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়েছিল এই ভাইরাস।

সেই মহারাষ্ট্রেই সোমবার যতজন নতুন করে সংক্রমিত হলেন, সেই সংখ্যাটা ছিল ২০২০ সালের ২৬ এপ্রিলের পর সব থেকে কম। আর এখন সংক্রমণের হার রয়েছে ১ শতাংশেরও নীচে। পরিষ্কার ভাবে বিচার করলে বুঝতে হয় মহারাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি এখন পশ্চিমবঙ্গের থেকেও ভালো।

সোমবার সে রাজ্যে নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ৫১৮ জন। গত বছর ২৬ এপ্রিল ৪৮০ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন রাজ্যে। তার পর এই প্রথম সংখ্যাটা এতটা কম রেকর্ড করা হল। এর পাশাপাশি, কোভিডে মারা গিয়েছেন মাত্র ৫ জন, যা ওই বছরের ৫ মে’র পর সব থেকে কম।

সুস্থতার সংখ্যাটি ব্যাপক ভাবে ছাড়িয়ে গিয়েছে নতুন সংক্রমণকে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সুস্থ হয়েছেন ৮১১ জন। এর ফলে মহারাষ্ট্রে এখন সক্রিয় কোভিডরোগী রয়েছেন ৬ হাজার ৮৫৩ জন, যা পশ্চিমবঙ্গের থেকে অনেকটাই কম।

উল্লেখ্য, করোনার প্রথম ঢেউ এবং দ্বিতীয় ঢেউ দুটোই মহারাষ্ট্র দিয়েই ঢুকেছিল ভারতে। মহারাষ্ট্রে প্রথম সংক্রমণ বাড়তে থাকে এবং তার মাসখানেকের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে অন্য রাজ্যে। ফলে, মহারাষ্ট্রেই যখন কোভিড এতটা তলানিতে, তখন দেশে তৃতীয় ঢেউ নিয়ে অযথা আতংকের কোনো মানে হয় না এখনই।

আরও পড়তে পারেন:

তৃণমূলের সঙ্গে জোট বাঁধল গোয়ার প্রথম শাসকদল

সোমবারের রীতি মেনেই বাড়ল সংক্রমণের হার, তবে নতুন সংক্রমণ পাঁচশোর কম

মে মাসে ৬-৮ দফায় বকেয়া পুরভোট, কলকাতা হাইকোর্টে জানাল নির্বাচন কমিশন

‘ভুল বোঝাবুঝির কারণে গুলি চলেছিল’, নাগাল্যান্ডের ঘটনা নিয়ে লোকসভায় বিবৃতি দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন