post office scheme

নয়াদিল্লি: সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী বেতন মিলছে ১৮ মাস ধরে। কিন্তু বাড়ি ভাড়া-সহ অন্যান্য বর্ধিত ভাতা মিলছিল না কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের। বেতন কমিশনের ভাতা সংক্রান্ত সুপারিশ খতিয়ে দেখতে অশোক লাভাসার নেতৃত্বে কমিটি গঠন করে দিয়েছিল কেন্দ্র। সুপারিশে কিছু সংশোধন করে সেই কমিটি তার রিপোর্ট পেশ করেছে গত এপ্রিলে। সেই রিপোর্ট নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে গিয়েছে সচিব স্তরে। এ মাসের শেষেই তা কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পাশ হয়ে যাবে আর জুলাই থেকে মিলবে বর্ধিত বেতন।

১৮ মাস ধরে বর্ধিত ভাতা দিতে না হওয়ায় কেন্দ্রের বেঁচেছে ৪০ হাজার কোটি টাকা। কিন্তু কর্মচারীদের সেই ক্ষতিপূরণ করা হচ্ছে অন্য ভাবে।

কতটা বাড়ছে?

কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের মোট প্রাপ্য ভাতার ৬০ শতাংশই আসে বাড়ি ভাড়া থেকে। ৫০ লক্ষের বেশি জনবসতিপূর্ণ শহরে এতদিন পুরোনো মূল বেতনের ৩০ শতাংশ বাড়ি ভাড়া হিসেবে পাচ্ছিলেন কর্মীরা। সপ্তম বেতন কমিশন নতুন মূল বেতনের ২৪% বাড়ি ভাড়া হিসেবে দেওয়ার সুপারিশ করেছিল। কিন্তু লাভাসা কমিটির সংশোধনের পর তা বেড়ে হচ্ছে ২৭%। কিন্তু যে হেতু সপ্তম বেতন কমিশন মূল বেতনটাই মোটের ওপর ২৩.৫৫% বাড়িয়ে দিয়েছে, তাই সেই বেতনের ওপর হিসেব কষে নতুন বাড়ি ভাড়া এবং অন্যান্য ভাতাবাবদ প্রাপ্য এক ধাক্কায় বেড়ে যাবে অনেকটাই।

আরও পড়ুন: এখনই নয়, ষষ্ঠ রাজ্য বেতন কমিশনের সুপারিশ হতে পারে লোকসভা ভোটের আগে: বিশেষ রিপোর্ট

সম্প্রতি নোটবন্দির জেরে জিডিপি বৃদ্ধির হার কমে হয়েছে ৬.১%। এখন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের হাতে আরও কিছু বাড়তি টাকা দিয়ে তাঁদের খরচ করার পরিমাণ বাড়়াতে চাইছে কেন্দ্র। অর্থনীতির হাল এই প্রক্রিয়ায় কতটা মেরামত হবে তা সময়ই বলবে। তবে মূল্যবৃদ্ধির সম্ভাবনা যে বাড়বে, তা মনে করছেন অনেকেই। ইতিমধ্যেই চলতি অর্থবর্ষে খুচরো পণ্যে মূল্যবৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here