বিক্ষিপ্ত অশান্তি ছাড়া নির্বিঘ্নেই শেষ হল ভোট-সপ্তমী

0

কলকাতা: অবশেষে শেষ হওয়ার পথে গণতন্ত্রের বৃহত্তম উৎসব, ভোটউৎসব। রবিবার সপ্তাম দফার নির্বাচনে গোটা দেশের পাশাপাশি ভোট দিচ্ছে কলকাতা এবং দুই ২৪ পরগণার ৮টি কেন্দ্র। সপ্তম দফার ভোটগ্রহণের যাবতীয় লাইভ আপডেটের জন্য দেখুন।

==============================================

***** বিকেল ৫টা রাজ্যের ন’টি লোকসভা এবং চারটি বিধানসভা উপনির্বাচনের ভোটের হার-

***** বিকেল ৫টা পর্যন্ত সারা দেশে ভোটের হার ৬১ শতাংশ।

***** বিকেল ৪টে নাগাদ নিজের বুথে ভোট দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিস্তারিত পড়ুন এখানে ক্লিক করে

***** এক নজরে দেখে নিন বেলা ৩টে পর্যন্ত ভোটের হার-

***** যাদবপুরের তৃণমূল প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর নামে পাশে ইভিএমে নীল কালি দিয়ে চিহ্নিত করণের অভিযোগ সোনারপুরের নতুন দিয়ারা অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৮ নম্বর বুথে। বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা ওই বুথের প্রিসাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাচ্ছেন নির্বাচন কমিশনে।

***** ভাটপাড়া উপনির্বাচনের অশান্তি রুখতে উপ-নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন বিশেষ নির্দেশ দিলেন রাজ্যের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক আরিজ আফতাব, বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক এবং পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেকে। জৈন জানান, অশান্তি রুখতে যে কোনো ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হোক। বিস্তারিত পড়ুন এখানে ক্লিক করে

***** দফায় দফায় বোমাবাজি। উত্তেজনা ছড়াল দক্ষিণ ২৪ পরগণার মথুরাপুরে।

***** ভাটপাড়ার উপনির্বাচনে অশান্তি। কাঁকিনাড়ার মদন মিত্রের ওপরে হামলার অভিযোগ। চলছে বোমাবাজি। আতঙ্কিত হয়ে অনেক ভোটারই ভোট না দিয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন। এলাকায় নেমেছে র‍্যাফ।

***** পানিহাটিতে তৃণমূলের ক্যাম্প ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে

***** রবীন্দ্র সরণিতে একটি বুথের সামনে বোমাবাজির অভিযোগ। আহত হয়েছেন এক ভোটার।

***** শেষ দফার ভোটে বিভিন্ন জায়গায় ইভিএম খারাপের অভিযোগ। বিশেষজ্ঞদের কাছে রিপোর্ট চেয়ে পাঠাল কমিশন।

***** সকাল ১১টা পর্যন্ত রাজ্যে ভোটদানের হার ৩২.২৫ শতাংশ।

***** যাদবপুরে একটি বুথের বাইরে অনুপম হাজরার গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ। ডায়মন্ড হারবারে বিজেপি প্রার্থী নিলাঞ্জন রায়েরও গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে।

***** দেগঙ্গায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে বচসায় জড়ালেন তৃণমূল প্রার্থী কাকলি ঘোষ দস্তিদার। তাঁর অভিযোগ ভোটারদের প্রভাবিত করছে বাহিনী। যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছে বাহিনী।

***** কুলতলিতে একটি বুথের সামনেই নকল ইভিএম নিয়ে ধরা পড়লেন এক তৃণমূল প্রার্থী। ওই বুথে সকাল থেকেই বিজেপির এজেন্টকে তৃণমূল বসতে দেয়নি বলে অভিযোগ।

***** তিলজলার একটি বুথে বিজেপি প্রার্থী রাহুল সিন্‌হাকে ঘিরে বিক্ষোভ। ওই বিক্ষোভ চলাকালীনই ইটবৃষ্টির অভিযোগের। ইটের ঘায়ে আহত হয়েছে দু’জন বিজেপি কর্মী। ওই বুথে ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ শুনে পৌঁছেছিলেন রাহুলবাবু।

***** বসিরহাটে একটি বুথের সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন ভোটাররা। অভিযোগ তৃণমূল কর্মীরা তাঁদের ভোটদানে বাধা দিচ্ছেন। তাঁদের বুথে নিয়ে যাওয়ার আশ্বাস বিজেপি প্রার্থী সায়ন্তন বসুর।

***** কলকাতা দক্ষিণ কেন্দ্রের প্রার্থী মালা রায়কে বাধা কেন্দ্রীয় বাহিনীর। মুদিয়ালির দেশপ্রাণ বীরেন্দ্রনাথ ইনস্টিটিউশনে ভোট দিতে এসেছিলেন তিনি

***** মধ্যপ্রদেশে ভোট দিলেন বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়

***** সোনারপুর এবং কুলতলির কয়েকটি বুথে ইভিএম খারাপ।

***** বিধানসভা উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে ভাটপাড়ার। শনিবার রাতে তুমুল উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল এই বিধানসভা কেন্দ্রে। তবে এখনও পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক।

***** সকাল ৯টা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনে ১৪টি অভিযোগ জমা পড়েছে। ভাঙড় থেকে এসেছে চারটে অভিযোগ।

*****ভাঙড়ে বুথে উত্তেজনা। ভয়ে ভোট দিতে আসছিলেন না ভোটাররা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ। ভোটারদের আস্থা বাড়াতে গ্রামে চলছে টহলদারি। আরাবুল ইসলাম ও তাঁর অনুগামীরা আগেরদিন হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ। সেই ভয়েই ভোট দিতে বেরোচ্ছিলেন গ্রামবাসীরা। 

***** দক্ষিণ ২৪ পরগণার কিছু বুথে বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর। কোথাও এজেন্টকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে।

****** দক্ষিণ কলকাতা লোকসভা কেন্দ্রে ২০৮ নং বুথে ভোট দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

****** সাতসকালে ভোট দিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার।

******দমদম লোকসভা কেন্দ্রের অর্ন্তগত খড়দহে ৯১ নং বুথে ইভিএম খারাপ থাকার জন্য প্রায় ১ ঘণ্টা বন্ধ থাকে ভোটগ্রহণ।

***** সল্টলেকের ১৬২ নং বুথে ভোট দিলেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। ভাটপাড়ায় একটি বুথে ছেলে পবন সিংকে নিয়ে ভোট দিলেন অর্জুন সিং।

***** নিউটাউনে বিজেপির একটি ক্যাম্প অফিসে আগুন। তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছে বিজেপি। তবে সে অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

***** শুরু হয়ে গিয়েছে ভোটগ্রহণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here