tripura police

ওয়েবডেস্ক:  বিগত বামফ্রন্ট জমানায় রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি নিয়ে সরব হয়েছিল বিজেপি। ক্ষমতা হস্তান্তর হয়ে সেই দলই এখন রাজ্যের সাশক। কিন্তু রাজধানী আগরতলা ও শহরতলির এলাকাগুলিতে  ক্রমবর্ধমান অপরাধের ঘটনা যেন আচমকাই বেড়ে গিয়েছে স্থানীয় মানুষের অভিযোগ।

সূত্রের খবর, শেষ ১০ দিনে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে আটটি মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। এর মধ্যে একটির কারণ ঠাওর করতে পারলেও বাকি সাতটি ঘটনার কোনো হদিশ খুঁজে পায়নি রাজ্য পুলিশ। স্বাভাবিক ভাবে ওই ঘটনাগুলি খুন কি না, সে ব্যাপারেও স্পষ্ট কোনো তথ্য জানাতে পারেনি পুলিশ। অন্য দিকে গত দু’সপ্তাহের মধ্যে আগরতলা ও সংলগ্ন এলাকায় চুরি-ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে ন’টি। সে বিষয়েও ভুক্তভোগীদের আশ্বস্থ করতে পারেনি পুলিশ।

তবে এমনও অভিযোগ উঠছে, এই ঘটনাগুলি নিয়ে পুলিশ মাথা না ঘামালেও নেশার দ্রব্যের চোরা কারবারিদের কাছ থেকে তোলা আদায়ে খামতি পড়ছে পড়ছে না।

উল্লেখ্য, রাজধানীর এ ডি নগর, চম্পকনগরের চিন্তাকোবরা, আমতলি থানার নেতাজিনগর, মাধবপুর, বল্লভপুর, খোয়াইয়ের লালটিলা, আমবাসা এলাকা থেকে মৃতদেহগুলি উদ্ধার করার পর পুলিশি তদন্তের গতিপ্রকৃতি নিয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ্যে আসেনি।

তবে ত্রিপুরা রাজ্য পুলিশের সর্বশেষ প্রাপ্ত একটি পরিসংখ্যান বলছে, গত মার্চ মাসে রাজ্যে চুরি-ছিনতাই-খুন-সহ একাধিক দুষ্কৃতী মূলক ঘটনা রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। ওই মাসে পুলিশের খাতায় নথিভুক্ত হয়েছে ১৫টি খুন, ২০টি অপহরণ, ৫৩টি সংঘর্ষের মতো গুরুতর অপরাধের ঘটনা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here