নয়াদিল্লি: দিল্লির বিখ্যাত মহল্লা ক্লিনিকের এক চিকিৎসকের শরীরে করোনাভাইরাস (Coronavirus) ধরা পড়েছে। এর জেরে ৮০০ জনকে কোয়ারান্টাইনে (Quarantine) পাঠানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন (Satyendra Jain)।

বুধবার ওই চিকিৎসকের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি টের পাওয়া যায়। কিছুক্ষণের মধ্যে তাঁর স্ত্রী, মেয়ে-সহ পরিবারের আরও চার জনের করোনাভাইরাসের পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এর পরেই দিল্লি জুড়ে হইচই পড়ে যায়।

২০১৫ সালে দিল্লিতে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিভিন্ন পাড়ায় এই মহল্লা ক্লিনিক গড়ে তুলেছিল অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal) নেতৃত্বাধীন দিল্লি সরকার। রোজই অনেক মানুষ ভিড় করেন ওই সব ক্লিনিকে।

স্বাভাবিক ভাবেই চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ১৩ থেকে ১৮ মার্চ পর্যন্ত ওই চিকিৎসকের সংস্পর্শে কত জন এসেছিলেন, সেটা খুঁজে বের করার চেষ্টা চলে। এর পরেই ৮০০ জনকে কোয়ারান্টাইনে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় দিল্লি সরকার।

আরও পড়ুন তীব্র গরমের কবলে পড়তে চলেছে গোটা দক্ষিণবঙ্গ

কিছু দিন আগে সৌদি আরব (Saudi Arabia) ফেরত এক মহিলা ওই চিকিৎসকের সংস্পর্শে এসেছিলেন। পরে জানা যায় ওই মহিলাও কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত। এই ৮০০ জন ছাড়াও ওই মহিলার সংস্পর্শে এসেছিলেন এমন আরও ৭৪ জনকে কোয়ারান্টাইনের নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন।

চিকিৎসক ও তাঁর পরিবারে করোনাভাইরাস ধরা পড়ায় দিল্লিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৬।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন