kerala floods
মাস দুয়েক আগে কেরলের বন্যার একটি ছবি

ওয়েবডেস্ক: যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া সত্ত্বেও কেরলে বন্যায় মৃতের সংখ্যা এক লাফে বেড়ে হল ৮৭। পরিস্থিতির ভয়াবহতা বিচার করে ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সেনার দল রাজ্যে পাঠানো হয়েছে।

কেরলে পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ যে বাড়তি সাহায্য চেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ফোন করেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। এর পরে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন মোদী। পাশাপাশি জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর আরও কর্মীকে কেরলে পাঠানোর জন্য বিজয়নকে আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ।

রাজ্যের সব থেকে ভয়াবহ অবস্থা পথনমথিট্টা জেলায়। এখানে দুর্গতদের উদ্ধারের জন্য বায়ুসেনাকে কাজে লাগানো হয়েছে। অন্য দিকে ত্রিসুর জেলায় বন্যাদুর্গত মানুষদের উদ্ধারে নামানো হয়েছে ইন্ডো-টিবেটান বর্ডার পুলিশের জওয়ানদের।

আরও পড়ুন উৎসবের জন্য বরাদ্দ টাকা লাগানো হবে বন্যার ত্রাণের কাজে, ওনম বাতিল করল কেরল সরকার

গ্রামাঞ্চলের অবস্থা তো খারাপ বটেই, বন্যার জল ঢুকতে শুরু করেছে কোচি শহরেও। এর ফলে শনিবার পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে কোচি বিমানবন্দর। লাইনের ওপর দিয়ে জল যাওয়ার ফলে কোচি শহরের মেট্রো পরিষেবাকেও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।সড়কের ওপর দিয়ে জল যাওয়ার ফলে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বাস পরিষেবাও।

শুধু বন্যাই জয়, রাজ্যের পার্বত্য অঞ্চল পড়েছে ধসের কবলে। বৃহস্পতিবার সকালেই পালাক্কাড় জেলায় ধসের ফলে অন্তত সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। এখনও তিন জন ধসের তলায় চাপা পড়ে আছেন বলে খবর।

এই সবের মধ্যে অবশ্য সাধারণ মানুষকে কিছুটা স্বস্তি দিতে পারে আগামী দিনের পূর্বাভাস। রাজ্যের বৃষ্টির তীব্রতা এ বার কমবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন