Connect with us

দেশ

ভাণ্ডারায় হিন্দুদের ভোগ পরিবেশন করলেন মুসলিমরা, সম্প্রীতির অনন্য উদাহরণ সেই পুরোনো দিল্লিতেই

দিল্লি: একটি মামুলি ঝামেলাকে কেন্দ্র করে গত সপ্তাহে হঠাৎ করে সাম্প্রদায়িক অশান্তি সৃষ্টি হয়েছিল পুরোনো দিল্লির একটা অঞ্চলে। সেই এলাকা এ বার দেখল সম্পূর্ণ অন্য একটা ছবি। অশান্তির আঁচ এখনও পুরোপুরি মিটে যায়নি, তাই অঞ্চলের মহিলা এবং শিশুরা এখনও বাড়ির বাইরে বেরোচ্ছেন না। কিন্তু পুরুষদের তো বাড়ির ভেতরে আটকে রাখা যায় না। হিন্দু এবং মুসলিম দুই সম্প্রদায়ের পুরুষই বেরিয়ে এলেন নিজেদের বাড়ি থেকে। স্থানীয় একটি মন্দিরে দুর্গামূর্তির পুনঃপ্রতিষ্ঠার যাত্রায় শামিল হলেন হিন্দু পুরুষরা। আর সেই যাত্রায় ফুল ছড়িয়ে দিলেন মুসলিমরা।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহের সেই অশান্তির পরে দুই গোষ্ঠীর মানুষকে নিয়ে তৈরি হয়েছিল একটি শান্তি কমিটি। মন্দির যাত্রার যাবতীয় আয়োজন এবং তার খরচা বহন করেছে ওই শান্তি কমিটিই।

এখানেই শেষ নয়। মন্দিরে একটি ভাণ্ডারার আয়োজন করা হয়েছিল। সেই ভাণ্ডারায় হিন্দু দর্শনার্থীদের জন্য খাবার পরিবেশন করলেন মুসলিমরা। মন্দিরে মূর্তি প্রতিষ্ঠা নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে চিন্তা ছিল। নতুন করে অশান্তি হোক, কেউ চাইছিলেন না। কিন্তু মঙ্গলবার যেটা ঘটল, সেটা দেখে সবাই এক দিকে যেমন অবাক, অন্য দিকে তেমনই খুব আনন্দিত। আর এর পাশাপাশি সাধারণ মানুষের ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছে দিল্লি পুলিশও। অশান্তি শুরু হওয়ার দিন থেকেই খুব দক্ষ হাতে সেটি সামলেছে পুলিশ। এ দিনও নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কোনো খামতি রাখেনি তারা।

কোনো রাজনৈতিক দলের কোনো নেতা এই অঞ্চলে গত কয়েক দিন আসেননি। সেটা শাপে বর হয়েছে বলেই মনে করেন এলাকার বাসিন্দারা। তাদের অনুপস্থিতিতে নিজেদের মধ্যে আস্থা বাড়ানোর কাজটা বাসিন্দারা নিজের হাতেই নিয়ে নিয়েছেন। অনেকের মতে, রাজনৈতিক নেতারা থাকলে পরিস্থিতি আরও বেশি জটিল হত, তাঁরা না থাকার ফলে পরিস্থিতি অনেক তাড়াতাড়ি স্বাভাবিক করা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সপ্তাহ খানেক আগে হঠাৎ করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল পুরোনো দিল্লির একটা অঞ্চল। একটি গাড়ি পার্কিং নিয়ে সামান্য গণ্ডগোল। সেই অশান্তি ধীরে ধীরে বাড়তে বাড়তে রূপ নিল গোষ্ঠীসংঘর্ষে। স্থানীয় একটি দুর্গামন্দিরে পাথর ছোড়া হল। ভাঙচুর করা হল মূর্তি। পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাওয়ার সব রকম উপাদান মজুত ছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা রকম ছবি পোস্ট করে আতঙ্ক তৈরি করা হচ্ছিল। যাঁরা ওই এলাকায় কোনো দিন আসেননি, তাঁরাই মূলত এই ভাবে সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে অশান্তিতে ইন্ধন জোগাতে চাইছিলেন। কিন্তু সেটা হয়নি, কারণ দ্রুত অঞ্চলের দুই গোষ্ঠীর মানুষজন পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে মাঠে নেমে পড়েন। তৈরি হয় শান্তি কমিটি।

আরও পড়ুন হালিশহরের ৮ কাউন্সিলার তৃণমূলে ফিরতেই দড়ি টানাটানি বিজেপিতে

পুলিশের ভূমিকাও ছিল যথেষ্ট প্রশংসনীয়। মূর্তি তছনছে জড়িত সবাইকে দ্রুত গ্রেফতার করা হয়। আর অন্য দিকে ভেঙে যাওয়া মন্দিরের মেরামতির জন্য যাবতীয় খরচা বহন করার জন্য এগিয়ে আসেন মুসলিমরা।

স্থানীয় বাসিন্দা তথা শান্তি কমিটির সদস্য আবু সুফিয়ান বলেন, “যখন অশান্তি শুরু হল, তখন মনে হচ্ছিল রাজনৈতিক নেতাদের আসা দরকার, কারণ আমরা কিছুতেই বুঝতে পারছিলাম না কী করব। কিন্তু এখন বুঝতে পারছি, তাঁরা না এসে ভালোই করেছেন। কারণ এখানে রাজনৈতিক নেতাদের আসা মানে জটিল পরিস্থিতিকে আরও বেশি জটিল করে তোলা। কারও কোনো সাহায্য ছাড়াই, শুধুমাত্র নিজেদের ইচ্ছেতেই কী ভাবে পরিস্থিতিকে শান্তি এবং দুই গোষ্ঠীর মানুষের মধ্যে আবার সম্প্রীতির বাতাবরণ তৈরি করা যায়, সেই পথই দেখালেন এই অঞ্চলের মানুষ।

এই প্রসঙ্গেই জোর গলায় সুফিয়ান বললেন, “আমরা করে দেখালাম, আমরা আজ গোটা ভারতকে পথ দেখালাম।”

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দেশ

২০২১-এর আগে নয় করোনা ভ্যাকসিন? প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেও সময়সীমা মুছে দিল বিজ্ঞানমন্ত্রক!

কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই সময়সীমা মুছে দেওয়া হয় বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর…

ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন (Coronavirus vaccine) “আগামী ২০২১ সালের আগে প্রয়োগের জন্য প্রস্তুত হবে না” বলেই প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর (PIB) ওয়েবসাইটে জানিয়েছিল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রক (Ministry of Science and Technology)। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই সময়সীমা মুছে দেওয়া হয় বলে সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর।

এর আগে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের অধীনস্থ ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) জানিয়ে দিয়েছিল, আগামী ৭ জুলাই থেকে পরবর্তী পাঁচ সপ্তাহ অর্থাৎ ১৫ অগস্টের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করে বাজারে আনতে হবে কোভ্যাক্সিন টিকা। যা নিয়ে প্রবল বিতর্কের সৃষ্টি হয়। একটি ভ্যাকসিন বাজারজাত করার আগে যে ধাপগুলি অতিক্রম করতে হয়, তা এই সময়কালের মধ্যে সম্পূর্ণ করা সম্ভব নয় বলেই দাবি করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা।

এমনকী আগামী স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যাতে এই ভ্যাকসিনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করতে পারেন, তেমন রাজনৈতিক উদ্দেশের কথা তুলে ধরা হয় বিরোধী দলগুলির তরফে।

তবে গত শনিবার নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে আইসিএমআর (ICMR) ফের জানিয়ে দেয়, লাল ফিতের জট এড়াতেই ওই পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। দ্রুত কাজ করতে গিয়ে কোনও ভাবেই মানুষের প্রাণের সঙ্গে ঝুঁকি নেওয়া হবে না।

রবিবার বিজ্ঞানমন্ত্রক জানায়, “ছ’টি ভারতীয় সংস্থা একটি কোভিড -১৯ ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করছে। দু’টি ভারতীয় ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সিন (COVAXIN) এবং জাইকভ-ডি (ZyCov-D)-র পাশাপাশি, বিশ্বের মোট ১৪০টির মধ্যে ১১টিরও বেশি ভ্যাকসিন মানবশরীরে পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে।”

সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, প্রথমের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এখানেই ছিল, “এর কোনোটিরই ২০২১ সালের আগে মানুষের শরীরে ব্যাপক ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হওয়ার সম্ভাবনা নেই”। কিন্তু কয়েক মুহূর্তের মধ্যেই তা মুছে ফেলা হয়। ফের সংশোধিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়।

পরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “মানুষের শরীরে ভ্যাকসিনগুলির পরীক্ষা পরিচালনার জন্য সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন (CDSCO)-এর ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া ‘সমাপ্তির শুরু চিহ্নিত’ করেছে”।

কোন পর্যায়ে রয়েছে ভারতীয় ভ্যাকসিন?

ভারতীয় দু’টি ভ্যাকসিনই দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষার জন্য অনুমোদন পেয়েছে। প্রথম দু’টি পর্যায়ে ভ্যাকসিনের সুরক্ষার দিকটি পরীক্ষা করা হয়। তৃতীয় পর্যায়ে ওষুধের কার্যকারিতা পরীক্ষা করা হয়।

প্রত্যেকটি পর্যায়ের জন্যই কয়েক মাস সময় লাগে। যে কারণে আইসিএমআরের বেঁধে দেওয়া সময়সীমা মেনে ভ্যাকসিনগুলি বাজারে আনার ঘোষণাও অপ্রত্যাশিত বলে দাবি করা হয়।

শনিবার অবশ্য আইসিএমআর স্পষ্ট করে জানিয়ে দেয়, ভ্যাকসিন তৈরিতে সারা বিশ্ব যে নীতি অনুসরণ করে এগোচ্ছে, ভারতেও তা মেনে চলা হবে।

তবে আইসিএমআরের প্রথম ঘোষণার পর কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশ জানিয়ে ছিলেন, আগামী ১০ জুলাই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিষয়টির ব্যাখ্যা চাওয়া হবে।

তার আগেই এ দিন বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে দিল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রক। তবে তা নিয়েও বিতর্ক রয়েই গেল!

নির্দেশে কী বলেছিল আইসিএমআর/ কেন বিতর্ক?

দেখুন এখানে ক্লিক করে: “১৫ আগস্টেই বাজারে আসবে, তবে ২০২১-এ,” কোভ্যাক্সিন নিয়ে সরকারি সময়সীমার তীব্র নিন্দা বিশেষজ্ঞদের

আরও পড়তে পারেন: ১৫ আগস্ট? করোনা ভ্যাকসিনের দিনক্ষণ বেঁধে দেওয়া নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করল আইসিএমআর

Continue Reading

দেশ

কোভিড-১৯: ২১টি রাজ্যে সুস্থতার হার জাতীয় হারের তুলনায় বেশি

দেখে নিন, যে ২১টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সুস্থতার হার জাতীয় হারের তুলনায় বেশি।

নয়াদিল্লি: শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশের নতুন করে করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার ছুঁইছুঁই বলে জানায় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। তবে একই সঙ্গে দেশের ২১টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সুস্থতার হার জাতীয় হারের তুলনায় বেশি।

সুস্থতার হার

দেশে সুস্থতার হার শনিবার পর্যন্ত ছিল ৬০.৮০ শতাংশ। তবে এ দিন তাতে ঈষৎ হলেও হ্রাস ধরা পড়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে সুস্থতার হার বর্তমানে রয়েছে ৬০.৭৭ শতাংশ।

স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, সমস্ত রাজ্য সরকারগুলিকে সঙ্গে নিয়ে কোভিড-১৯ (Covid-19) নিয়ন্ত্রণের জোরালো পদক্ষেপ নিয়েছে কেন্দ্র। যে কারণে এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত মোট ৬,৭৩,১৬৫ জনের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪,০৯,০৮২ জন। এ দিন সকাল ৮টায় আপডেট হওয়া তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে সারা দেশে ২,৪৪,৮১৪ জন আক্রান্ত চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মন্ত্রক বলে, রবিবার পর্যন্ত চিকিৎসাধীন এবং সুস্থ হয়ে ওঠা আক্রান্তের সংখ্যার ব্যবধান ১,৬৪,২৬৮। শেষ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছে ১৪,৮৫৬ জন আক্রান্ত।

একই সঙ্গে যে ২১টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সুস্থতার হার জাতীয় হারের তুলনায় বেশি, সেগুলির নাম-সহ বিশদ পরিসংখ্যানও পেশ করে মন্ত্রক।

কোন কোন রাজ্য?

চণ্ডীগড়: ৮৫.৯ শতাংশ

লাদাখ: ৮২.২ শতাংশ

উত্তরাখণ্ড: ৮০.৯ শতাংশ

ছত্তীসগঢ়: ৮০.৬ শতাংশ

রাজস্থান: ৮০.১ শতাংশ

মিজোরাম: ৭৯.৩ শতাংশ

ত্রিপুরা: ৭৭.৭ শতাংশ

মধ্যপ্রদেশ: ৭৬.৯ শতাংশ

ঝাড়খণ্ড: ৭৪.৩ শতাংশ

বিহার: ৭৪.২ শতাংশ

হরিয়ানা: ৭৪.১ শতাংশ

গুজরাত: ৭১.৯ শতাংশ

পঞ্জাব: ৭০.৫ শতাংশ

দিল্লি: ৭০.২ শতাংশ

মেঘালয়: ৬৯.৪ শতাংশ

ওড়িশা: ৬৯.০ শতাংশ

উত্তরপ্রদেশ: ৬৮.৪ শতাংশ

হিমাচলপ্রদেশ: ৬৭.৩ শতাংশ

পশ্চিমবঙ্গ: ৬৬.৭ শতাংশ

অসম: ৬২.৪ শতাংশ

জম্মু ও কাশ্মীর: ৬২.৪ শতাংশ

অর্থাৎ, এই তালিকাগুলি থেকে বাদ পড়েছে মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ অথবা তামিলনাড়ু, কর্নাটকের মতো বড়ো রাজ্য, যেখানে সংক্রামিতের সংখ্যাও তুলনামূলক ভাবে বেশি।

আরও পড়তে পারেন: এই প্রথম ভারতে এক দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজারের বেশি

Continue Reading

দেশ

রাষ্ট্রপতি ভবনে নরেন্দ্র মোদী-রামনাথ কোবিন্দ বৈঠক

লাদাখ সফরের কয়েক দিনের মধ্যেই রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী সাক্ষাৎ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই ধারণা করছে ওয়াকিবহাল মহল।

নয়াদিল্লি: রবিবার সকালে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠকে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকের পর রাষ্ট্রপতি ভবনের টুইটার হ্যান্ডলে জানানো হয়, “জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয় নিয়েই দু’জনের কথা হয়েছে এ দিন”।

রবিবার সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। সেখানে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের (Ramnath Kovind) সঙ্গে তাঁর বেশ কিছুক্ষণ কথোপকথন হয়। দু’দনি আগেই হঠাৎ লাদাখ সফরে যান প্রধানমন্ত্রী। ভারত-চিন সীমান্ত উত্তেজনার মাঝে লাদাখ সফরের কয়েক দিনের মধ্যেই রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী সাক্ষাৎ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই ধারণা করছে ওয়াকিবহাল মহল।

এ দিনের বৈঠকের পরে রাষ্ট্রপতি ভবনের টুইটার হ্যান্ডলে জানানো হয়, রাষ্ট্রপতি ভবনে এই কথোপকথনে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয় নিয়েই আলোচনা হয়। তবে এর বেশি কিছু জানানো হয়নি। তবে টুইটে প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতি কথোপকথনের একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছে।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, দেশের সাম্প্রতিক করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে দু’জনের মধ্যে কথা হতে পারে। একই সঙ্গে লকডাউনের ফলে মুখ থুবড়ে পড়া অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে সমসাময়িক যে পদক্ষেপগুলি নেওয়া হয়েছে, সে বিষয়েও আলোচনা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি ভবন জানায়, আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়েও দু’জনের মধ্যে কথা হয়। সে ক্ষেত্রে ভারত সীমান্তে চিনের সাম্প্রতিক পদক্ষেপ এবং নেপালের বিতর্কিত মানচিত্র প্রণয়ন-সহ একাধিক ইস্যুতে তাঁদের আলোচনা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Continue Reading
Advertisement
দেশ31 mins ago

২০২১-এর আগে নয় করোনা ভ্যাকসিন? প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেও সময়সীমা মুছে দিল বিজ্ঞানমন্ত্রক!

দেশ2 hours ago

কোভিড-১৯: ২১টি রাজ্যে সুস্থতার হার জাতীয় হারের তুলনায় বেশি

বিনোদন2 hours ago

করোনা আবহে কী ভাবে হল ‘বিবাহ বার্ষিকী’র শুটিং? দেখে নিন অভিনেত্রী দর্শনা বণিকের এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকার

দেশ3 hours ago

রাষ্ট্রপতি ভবনে নরেন্দ্র মোদী-রামনাথ কোবিন্দ বৈঠক

শিল্প-বাণিজ্য3 hours ago

আক্রান্ত আড়াইশো! অস্থায়ী ভাবে বাজাজের একটি প্রকল্প বন্ধের দাবি কর্মী সংগঠনের

শিল্প-বাণিজ্য4 hours ago

কয়েক হাজার কর্মীকে ছাঁটাই করেছে কগনিজ্যান্ট, অভিযোগ ইউনিয়নের

কেনাকাটা4 hours ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

দেশ5 hours ago

নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে ওড়িশায় মৃত কমপক্ষে চার মাওবাদী

দেশ10 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৫০, সুস্থ ৯৩৮১

কলকাতা1 day ago

কলকাতায় অতিসংক্রমিত ১৬টি অঞ্চলকে পুরোপুরি সিল করে দেওয়ার প্রস্তুতি

দেশ2 days ago

দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যায় নতুন রেকর্ড, সুস্থতাতেও রেকর্ড

দেশ2 days ago

‘সবার টিকা লাগবে না, আর পাঁচটা রোগের মতোই চলে যাবে করোনা’, আশ্বাস অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীর

wfh
ঘরদোর2 days ago

ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন? কাজের গুণমান বাড়াতে এই পরামর্শ মেনে চলুন

thunderstorm
রাজ্য2 days ago

কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে সন্ধ্যার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

রাজ্য2 days ago

পশ্চিমবঙ্গে ১৫ রুটে বেসরকারি ট্রেন, ভাড়া বাড়বে কি?

fat
শরীরস্বাস্থ্য2 days ago

কোমরের পেছনের মেদ কমান এই ব্যায়ামগুলির সাহায্যে

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 hours ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা5 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

smartphone smartphone
কেনাকাটা7 days ago

লকডাউনের মধ্যে ফোন খারাপ? রইল ৫ হাজারের মধ্যে স্মার্টফোনের হদিশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ঘরে বসে যতটা কাজ সারা যায় ততটাই ভালো। তাই মোবাইল ফোন খারাপ...

কেনাকাটা1 week ago

১০টি ওয়াশেবল মাস্ক দেখে নিন

খবর অনলাইন ডেস্ক : বাইরে বেরোচ্ছেন। মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করুন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে তিন স্তর বিশিষ্ট মাস্ক...

নজরে