বেঙ্গালুরু : ডিআইজি ডি রূপা মুদগিলের বিরুদ্ধে ২০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করলেন প্রাক্তন ডিজিপি (কারা) এইচ এন সত্যনারায়ণ রাও। বেঙ্গালুরুর সেন্ট্রাল জেলে এআইএডিএমকে নেত্রী ভি কে শশীকলাকে অর্থের বিনিময়ে বিশেষ সুবিধে পাইয়ে দেওয়া হচ্ছে, প্রাক্তন ডিজিপির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ এনে ছিলেন রূপা। তার পরই জেলের অভ্যন্তরীণ খবর প্রকাশ্যে আনার অভিযোগে রূপাকে ট্র্যাফিক দফতরে বদলি করে কর্নাটক সরকার। রাও-এর আইনজীবী পুট্টিজ রমেশ বলেন, সোমবার বেঙ্গালুরু কোর্টে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা করা হয়েছে একটি কন্নড় টিভি চ্যানেল আর একটি প্রসিদ্ধ সংবাদপত্রের বিরুদ্ধেও। অন্যদিকে রূপা বলেন, তিনি কোনো মানহানি মামলার নোটিশ পাননি। যাদি পান তার উত্তর কোর্টেই দেবেন। তবে প্রথম কথা হল কোনো রকম মানহানি করাই হয়নি।

আইনজীবী রমেশ বলেন, রুপা কোনো রকম নোটিশ জারি না করেই সরাসরি অভিযোগ করেছেন। এটা আইন বিরুদ্ধ। তা ছাড়া রূপা জেলের ভেতরের খবর সাংবাদমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছেন। প্রথমে ৫০ কোটির মামলা করা হবে ঠিক করা হয়েছিল। কিন্তু তার জন্য প্রয়োজন ছিল ৩০ লক্ষ টাকা। তা জোগাড় করা যায়নি। শেষ অবধি তাই ২০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, রূপা ১১ জুলাই রিপোর্ট পেশ করেন। তার পরের দিন ১২ জুলাই তা বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দেখানো শুরু হয়। এর থেকে এটা স্পষ্ট যে ঊর্দ্ধতনের কাছে রিপোর্ট পেশ করার আগেই রূপা বিভিন্ন মাধ্যমের কাছে তা প্রকাশ করেছেন।

আরও পড়ুন : বদলি করা হলেও শশীকলা নিয়ে নিজের রিপোর্টে অনড় ডিআইজি রূপা

ওই আইনজীবী বলেন, রূপাকে নিয়ে ছবি হচ্ছে। তাই জনপ্রিয়তা পাওয়ার জন্য রাও-এর বিরুদ্ধে এমন একটি মানহানিকর রিপোর্ট তৈরি করেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত জুলাই মাসে রূপা একটি রিপোর্ট পেশ করেন। তাতে বলা হয়েছিল, ২ কোটি টাকার বিনিময়ে শশীকলাকে বিশেষ খাতির যত্ন করা হচ্ছে। তার জন্য বিশেষ রান্না ঘর, দর্শনার্থীদের সঙ্গে দেখা করার জন্য আলাদা কনফারেন্স রুম, থাকার উন্নত ব্যবস্থা-সহ যাবতীয় ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধে দেওয়া হচ্ছে। এই সব জেনেও রাও কোনো ব্যবস্থা নেননি।

একটা ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, বন্দিদের জন্য নির্দিষ্ট করা বিশেষ পোষাক না পরে শশীকলা নিজস্ব সালওয়ার পরে কারাগারের ভিতরে ঘোরাফেরা করছেন।

এই সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দেন প্রাক্তন ডিজিপি। বলেন, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, মিথ্যে ও পাগলের প্রলাপ। এর বিরুদ্ধে তিনি আইনি ব্যবস্থা নেবেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here