বাড়ি কিনবেন? বাজেটে কতটা ছাড়ের কথা বললেন অর্থমন্ত্রী

0

ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় সাধারণ বাজেট ২০১৯-এর প্রস্তাবে গৃহঋণের সুদে মোট ছাড় ৩.৫ লক্ষ টাকা ছাড় ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। বাজেটে পেশের কয়েক দিন আগে থেকেই অর্থমন্ত্রক সূত্রে শোনা যাচ্ছিল এ বারের বাজেটে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বাড়তি গুরুত্ব দিতে চলেছেন হাউজিং সেক্টরে।

অর্থ মন্ত্রকের সূত্র অনুযায়ী, বর্তমানের গতিশীল অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে যেমন হাউজিং সেক্টরে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়ার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এগনো হচ্ছে, তেমনই এই খাতে গুরুত্ব দেওয়ায় কর্মসংস্থান সৃষ্টিরও প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই নির্মাণ শিল্পে জোয়ার আনতে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা এ দিন উঠে এলে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবে।

অর্থমন্ত্রী এ দিন ঘোষণা করেন, ৪৫ লক্ষ টাকার বাড়ি কিনলে গৃহঋণের সুদে ১.৫-৩.৫ লক্ষ টাকার অতিরিক্ত ছাড়ের সুবিধা নিতে পারবেন ক্রেতা। আগামী ৩১ মার্চ,২০২০ সালের মধ্যে যাঁরা বাড়ি কিনবেন, তাঁরাই এই ছাড়ের সুবিধা দাবি করতে পারবেন। ১৫ বছরের ঋণের মেয়াদে এই ছাড়ের আওতায় মোট ৭ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ছাড়ের সুবিধা নিতে পারেন গ্রাহক।

নিজের বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, সবার জন্য বাড়ি দৃষ্টিভঙ্গিকে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই গৃহনির্মাণকারীদের একাধিক সুবিধা দেওয়া হয়েছে। নির্মাণকারীরা যাতে সাশ্রয়ী মূল্যে ক্রেতার হাতে বাড়ি তুলে দিতে পারেন একই সঙ্গে ক্রেতাও যাতে নিজের সাধ্যের মধ্যে সেই বাড়ি কিনতে পারেন, সেই লক্ষ্য নিয়েই ঋণের উপর এই বিশেষ ছাড়ের প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, আরও সুবিধা প্রদানের জন্য, আমি ৩১ মার্চ ২০২০ পর্যন্ত গৃহীত ঋণের জন্য প্রদেয় ১.৫ লক্ষ টাকা অতিরিক্ত সাশ্রয়ের অনুমতি দেওয়ার প্রস্তাব রাখছি, যা ৪৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত একটি সাশ্রয়ী মূল্যের বাড়ি কিনে ওই সুবিধা নিতে পারেন যে কোনো ক্রেতা।

প্রসঙ্গত, নীতিনির্ধারকরা অর্থনৈতিক মন্দার বিপরীতে বিপর্যয়ের দিকগুলিতে বেশি করে নজর দিচ্ছেন। সে প্রসঙ্গেই বলা হচ্ছে, হাউজিং সেই সমস্ত সম্ভাব্য সেক্টরগুলির মধ্যে একটি অন্যতম মাধ্যম, যা দেশের অর্থনীতিকে গতিশীল করতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিতে পারে। ২০১৯ আর্থিক বছরে বিগত পাঁচ বছরের তুলনায় জিডিপির পরিমাণ সব থেকে কম ছিল, এই বছর জিডিপি দাঁড়িয়েছে ৬.৮ শতাংশে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here