man kills two wives

ডারবান (দক্ষিণ আফ্রিকা) : সশস্ত্র ডাকাতির ঘটনা ঘটল দক্ষিণ আফ্রিকায় ভারতীয় রাষ্ট্রদূত শশাঙ্ক বিক্রমের বাসভবনে।বিক্রমের ৫ বছরের ছেলেকে কিছু ক্ষণ বন্দি করে রাখে ডাকাতদল। সরকারি সূত্রে ঘটনার কথা স্বীকার করা হয়েছে। তবে এই ঘটনায় কাররও শারীরিক ক্ষতি হয়নি বলে জানানো হয়েছে। ভারতীয় দূতের নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে ভারতের সরকার দক্ষিণ আফ্রিকা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ভিয়েনা কনভেনশন অনুযায়ী ভারতের রাষ্ট্রদূত, আধিকারিক ও তাঁদের পরিবারবর্গ আর সম্পত্তির নিরাপত্তার দায়িত্ব যে সে দেশের সে কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র।

দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবানর ইনেস রোডে ভারতের কনসাল জেনারেল শশাঙ্ক বিক্রমের বাসভবন। বিক্রম বলেন, ডারবান তাঁদের কাছে নিজের বাড়ির মতোই। সেখানে তাঁরা ভালোই আছেন। তাঁরা কখনোই ভাবেননি যে এমন ঘটনা ঘটতে পারে। এই জন্যই সকলে খুবই মর্মাহত আর ভীতও। এই প্রথম বার এমন হামলা হল। ডাকাতরা তাঁর ছোটো ছেলেকে বন্দি করেছিল। পরিচারক, কর্মীদের পিটিয়েছে। তাঁর স্ত্রীর দিকে বন্দুক তাক করেছিল। এর পরও তিনি আশা রাখছেন, ভারতীয় দূতাবাস আর কূটনীতিকদের জন্য যথেষ্ট নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে।

সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, ঘটনার সময় শশাঙ্ক বিক্রম বাড়িতে ছিলেন না। তাঁর স্ত্রী, ১০ বছর আর ৫ বছরের দুই ছেলে, বাড়ির পরিচারক, এক জন শিক্ষককে বাড়ির মধ্যেই আটক করেছিল এই অনুপ্রবেশকারীরা। জানা গিয়েছে, গয়না, নগদ অর্থ, এক জন পরিচারকের মোবাইল ফোন চুরি গিয়েছে। ডাকাতরা প্রবেশ পথের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকেছিল। এখনও পর্যন্ত কাউকে আটক করা যায়নি।

ভারতের কনসাল এস কে পাণ্ডে বলেন, দু’ জন শিশুই সুস্থ আছে। কিন্তু তারা খুবই ভয় পেয়েছে।

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবিশ কুমার বলেন, রাষ্ট্রদূত ও আধিকারিক এবং  তাঁদের পরিবারের নিরাপত্তার বিষয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট মহল তদন্ত করছে। তিনি বলেন, আশা করা হচ্ছে অনুপ্রবেশকারীরা শীঘ্রই ধরা পড়বে। বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ রাষ্ট্রদূত শশাঙ্ক বিক্রমের সঙ্গে এই প্রসঙ্গে কথাও বলেছেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here