Arun Jaitley
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

ওয়েবডেস্ক: “সংসদ সম্মত আইনের বলে ফের আধার নাম্বারকে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট অথবা মোবাইল নাম্বারে বাধ্যতা করা যেতে পারে” বলে জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। তবে কেন্দ্র এ বিষয়ে কোনো স্থায়ী আইন নিয়ে আসছে কি না, সে ব্যাপারে কোনো উচ্চবাচ্য করেননি।

সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের রায়ে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, মোবাইল পরিষেবা বা স্কুলে ভর্তি ও পরীক্ষার বসার ক্ষেত্রে আধার নাম্বারের কার্যকারিতা হ্রাস করা হয়েছে। যদিও অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, “সর্বোচ্চ আদালতের ওই রায়ে রাষ্ট্রের প্রয়োজনীয়তায় আধারের ব্যবহারের বিষয়েও মৃদু ইঙ্গিত রয়েছে”।

একটি সংবাদ মাধ্যমের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে জেটলি বলেন, “আধার কার্ড কোনো নাগরিকত্বের পরিচয়পত্র নয়। কারণ, দেশের সমস্ত নাগরিকের কাছে সরকারি প্রকল্পের পরিষেবা বা ভরতুকি সুষ্ঠু ভাবে পৌঁছে দিতেই ১২ অঙ্কের আধার নাম্বার ব্যবহারের মূল লক্ষ্য”।

সুপ্রিম কোর্ট বেসরকারি সংস্থাগুলির আধার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তিনি বলেন, “আইনগত ভাবে রাষ্ট্রের কাজে আধার ব্যবহারকে বৈধ করা যেতে পারে। কিন্তু সেই বৈধতারও একটা নির্দিষ্ট পরিসীমা রয়েছে। ঠিক কী উদ্দেশে ওই আইনের প্রয়োগ করা হচ্ছে, সেটাও দেখার বিষয়”। যদিও তিনি একটি বারের জন্যও বলেননি এ ব্যাপারে সংসদে নতুন কোনো আইন নিয়ে আসা হতে পারে কি না?


পড়তে পারেন: শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত রাজ্যের

জেটলি বলেন, “সুপ্রিম কোর্ট আনুপাতিকতার নীতি অনুযায়ী কয়েকটি ক্ষেত্রে আধারের বৈধতা মেনে নিয়েছে। আয়কর দাখিল বা প্যান নাম্বারে আধারের ব্যবহার আগের মতোই অটুট রয়েছে। ফলে উদাহরণ-সহ যদি মোবাইল বা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নাম্বারের সঙ্গে আধার ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা বিশদ ভাবে তুলে ধরা সম্ভব হয়, তা হলে এই ক্ষেত্রগুলিতেও তা প্রয়োগ করার আইনত বৈধতা আদায় করতে পারে”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন