ইভিএম কারচুপি: দিল্লি বিধানসভায় হাতে কলমে করে দেখাল আপ, কপিল বললেন দৃষ্টি ঘোরানোর চেষ্টা

0

নয়াদিল্লি: মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে ঘুষের অভিযোগকে কেন্দ্র রীতিমতো সরগরম রাজধানীর রাজনীতি। সকালে সিবিআই-এর কাছে ‘ভারাক্রান্ত হৃদয়ে’ অভিযোগ জানিয়ে এসেছেন আপ সরকারের সদ্য প্রাক্তন মন্ত্রী কপিল মিশ্র। চিঠি দিয়ে তা ‘গুরু’ কেজরিওয়ালকে জানিয়েছেন। ঠিক সেইদিনই দিল্লি বিধানসভায় আপ বিধায়ক হাতে কলমে দেখালেন কী ভাবে ইভিএম-এ কারচুপি করা সম্ভব।

মঙ্গলবার প্রায় আধ ঘণ্টা ধরে আপ বিধায়ক সৌরভ ভরদ্বাজ বিধানসভায় ইভিএম কারচুপির বিষয়টি অন্যান্য সদস্যদের দেখান। প্রাক্তন কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ার সৌরভ বলেন,‘‘সব কিছুই ডিকোড করা সম্ভব, তাই ইভিএমকেও ডিকোড করা যেতে পারে।’’ তিনি বলেন, ‘‘একটি গোপন কোড ব্যবহার করে ভোটের দিনই ঠিক করে দেওয়া যেতে পারে কে জিতবে।’’

কিন্তু কী ভাবে তা সম্ভব? আপ বিধায়ক বলেন,‘‘ কোড ব্যবহার করে মাদারবোর্ডে অল্প পরিবর্তন করলেই ভোটের ফল পাল্টে দেওয়া যাবে। যা করা যাবে মাত্র ৯০ সেকেন্ডর মধ্যে।’’ সৌরভ বলেন, ‘‘আগামী বছর গুজরাত ভোট। সেই ভোটে যে ইভিএমগুলি ব্যবহার করা হবে, সেগুলির সঙ্গে তাকে তিন ঘণ্টা ছেড়ে দিতে হবে। তাহলে তিনি দেখিয়ে দেবেন যে সেই নির্বাচনে বিজেপি একটি ভোটও পাবে না।’’

আপ এদিন যে ‘নকল’ এভিএমটি ব্যবহার করেছে দলীয় সূত্র জানা গিয়েছে সেটি তৈরি করেছেন আইআইটি-র এক প্রাক্তন ছাত্র। সেটি যাচাই করেছেন এক ইভিএম বিশেষজ্ঞ।

এই হাতে-কলমে প্রদর্শনীতে উপস্থিত থাকার জন্য আপ-এর পক্ষ থেকে তৃণমূল, সিপিএম এবং জনতা পার্টিকে আহ্বান জানানো হয়। প্রদর্শনের শেষে আপ বিধায়ক বলেন, ‘‘ইভিএম গণতন্ত্রের পক্ষে মোটেই সুবিধাজনক নয়। এটি ব্যবহার হতে থাকলে এমন দিন আসবে যেদিন দেশে একটা দল ‘রাজ’ করবে।’’ তারা আবারও ব্যালটের মাধ্যমে ভোটের দাবি তোলেন।

বিবৃতি জারি  নির্বাচন কমিশনের

এই ঘটনায় বেজায় চটেছে নির্বাচন কমিশন। তারা এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, দিল্লি বিধানসভায় প্রদর্শনের সময় যে ইভিএমটি দেখান সেটি ‘নকল’ নির্বাচন কমিশনের আসল ইভিএম নয়। মে মাসের শেষের দিকে ইভিএম হ্যাক করা যা কিনা তা দেখতে ‘হ্যাকথন’-এর আয়োজন করেছে কমিশন। সেখানে অংশগ্রহণ করার জন্য আপকে আহ্বান জানিয়েছে কমিশন।

বিধানসভায় ‘লাইভ ডেমো’ নিয়ে কী বললেন কপিল মিশ্র?

আপ-এর এই উদ্যোগকে ‘দৃষ্টি ঘোরানোর চেষ্টা’ বলে মন্তব্য করেছেন দিল্লি সরকারের জল বিভাগের প্রাক্তন মন্ত্রী কপিল মিশ্র।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here