৬১ ঘণ্টার অপেক্ষার অবসান, উঠে এল একাধিক প্রশ্ন

ওয়েবডেস্ক: ভারতে ফিরলেন উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। গত বুধবার পাকিস্তানের হাতে বন্দি হওয়ার পর টানা ৬১ ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস প্রতীক্ষার অবসান হল শুক্রবার রাত ৯.২২টায়। একই সঙ্গে উঠে এল একাধিক প্রশ্ন। যার উত্তর খুঁজতে সচেষ্ট ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

প্রথমত, ঠিক কারণে অভিনন্দনের হস্তান্তরে এতটা বিলম্ব করল পাকিস্তান?

একই সঙ্গে জানা গিয়েছে, পথিমধ্যে দু’বার হস্তান্তরের সময় বদল করে পাক সেনা। তারই-বা কারণ কী?

তৃতীয়ত, বাটাপুরে পাক সেনা ক্যাম্পে অভিনন্দনের মেডিক্যাল চেকআপ-এ এতটা সময় লাগল কেন?

চতুর্থত, ভারতের তরফে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল অভিনন্দনের হস্তান্তরে বিমান ব্যবহার করতে। তা প্রত্যাখান করে কেন গাড়ি ব্যবহার করা হল?

এ ছাড়া আরও বেশ কিছু গোপনীয় কারণের উত্তর খুঁজছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। এ দিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী পুরো ঘটনার উপর নজর রাখছিলেন শুরু থেকেই। তিনি হস্তান্তরের সমস্ত নথি যাচাই না-করা পর্যন্ত এ বিষয়ে মন্তব্য করবেন না, সেটা এক প্রকাশ স্থির। কিন্তু প্রাথমিক ভাবে যখন জানানো হয়েছিল বিকেল ৪টে থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যেই অভিনন্দন ভারতে প্রত্যাবর্তন করতে পারে, সেখানে কেন এতটা বিলম্ব হল। বাড়তি সময়ে ঠিক কোন কৌশল অবলম্বন করা হয়েছিল পাকিস্তানের তরফে?

উল্লেখ্য, অভিনন্দনের প্রত্যাবর্তনের সময়ই সীমান্তের একাধিক জায়গায় সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে গুলি-গোলা বর্ষণ করে জঙ্গিরা। জম্মু ও কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলার হান্দওয়ারাতে জঙ্গিদের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে ২ সিআরপিএফ অফিসার এবং দু’জন জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের কর্মী নিহত হয়েছেন। জখম হয়েছেন আরও ৩ আধা-সামরিক বাহিনীর জওয়ান। এ ছাড়া ১ সাধারণ নাগরিকেরও মৃত্যু হয়েছে। এটাও হয়তো সন্দেহের ঊর্ধ্বে নয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.