আগামী সেপ্টেম্বরে নিউ ইয়র্ক ফ্যাশন সপ্তাহে র‍্যাম্পে হাঁটবেন মুম্বই-তনয়া রেশমা কুরেশি। বিনোদন জগতে খুব চাঞ্চল্যকর কিছু না হলেও একটা খবর তো বটেই। রেশমার বাবা মুম্বইয়ের এক জন ট্যাক্সি ড্রাইভার;  এখানে শেষ হলেও হতে পারত খবরটা। কিন্তু না, বাকি থেকে গেল অনেকটা, প্রায় পুরোটাই।

উনিশ বছরের রেশমার গল্পটা একটু আলাদা আর পাঁচটা সেলিব্রিটি শো স্টপারের থেকে। ক্ষতবিক্ষত হয়ে যাওয়া একটা মুখ, বাঁ চোখের গর্তটাও নেই। এক কথায় ভয় পাওয়ানো বীভৎস চেহারা। ভয় পাইয়েছে উদ্ধত পুরুষতন্ত্রকে। বছর দুয়েক আগে মুখে অ্যাসিড ছুড়ে মারে দিদির স্বামী ও তার বন্ধুরা। অ্যাসিডে পুড়েছে যেটা, ওটা মুখ নয়, মুখোশ। একটা চোখ হারিয়েছেন; আত্মবিশ্বাস নয়। সমাজের সাথে আর নিজের সাথে লড়াই করে ফিরে এসেছেন মূলস্রোতে। এই রেশমা এ বার হাঁটবেন র‍্যাম্পে, তা-ও আবার নিউ ইয়র্কে, এটাই হবে রেশমার প্রথম বিদেশযাত্রা।

‘এফএলটি মোডা’ নামের একটি সংস্থার আমন্ত্রণে নিউ ইয়র্ক ফ্যাশন সপ্তাহে যোগ দিচ্ছেন রেশমা। ভারতে প্রকাশ্যে অ্যাসিড বিক্রি বন্ধ করার প্রচারের মুখ হিসেবেও এর আগে দেখা গেছে তাঁকে। ‘এফএলটি মোডা’ এর আগেও আন্তর্জাতিক মঞ্চে সৌন্দর্যের এবং ফ্যাশনের প্রথাগত ধারণাকে আঘাত করেছে বারবার। গত বছর ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত এক অস্ট্রেলীয় কিশোরীকে তাঁরা নিয়ে আসেন ফ্যাশন সপ্তাহে।

আমন্ত্রণের খবর শুনে মুহূর্তের জন্য চোখ ভিজে আসে রেশমার। দ্রুত সামলে নেন নিজেকে। রেশমা জানেন তাঁর লড়াই শেষ হয়নি, থামেনি একটুও। দেশের হাজার হাজার রেশমার লড়াই কাঁধে নিয়ে চলতে হবে তাঁকে। তাই, দয়া নয়, করুণা নয়, সমবেদনাও নয়; রইল কুর্নিশ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here