Narendra Modi
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের পর নির্বাচন কমিশন রাজনৈতিক দলগুলির উদ্দেশে জানিয়েছিল, নির্বাচনী প্রচারে যেন সেনাবাহিনীর প্রসঙ্গ কোনো মতেই টেনে নিয়ে না-হয়। কিন্তু বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির অভিযোগ, কমিশনের এই নিষেধাজ্ঞার পরেও মোদী-শাহ জুটি সমানে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারস্ট্রাইকের সাফল্যকে দলীয় প্রচারে ব্যবহার করছেন। কমিশন সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে ‘খুব শীঘ্র’ই পদক্ষেপ নিতে চলেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

বিজেপি প্রথম থেকেই জাতীয় নিরাপত্তা এবং জাতীয়তাবাদকে প্রচারের মূল বিষয় হিসাবে তুলে ধরেছে। স্বাভাবিক ভাবেই বিরোধীদের অভিযোগ মতো বিজেপির প্রচারে উঠে আসা বিষয়গুলি আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে কি না, সেটাই খতিয়ে দেখার কাজ করছে কমিশন।

গত মঙ্গলবারই কমিশন জানিয়েছিল, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। এ দিন কমিশন সূত্রে খবর, সেই বিষয়ে ‘খুব শীঘ্র’ই পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কিন্তু কবে?

কমিশনের এক আধিকারিক সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, “আমরা নির্বাচন শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে পারব না। নির্বাচনী আধিকারিকরা এ ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করছে”।

উল্লেখ্য, গত ৯ এপ্রিল মোদী সরাসরি জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় নিহত ‘শহিদ’দের নামে শপথ নিতে বলেছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here