পাকুড়: “এত দিন ভাবতাম ঝাড়খণ্ড একটা শান্তিপূর্ণ রাজ্য। কিন্তু আজকের ঘটনার পর আমার দৃষ্টিভঙ্গিটাই বদলে গেল” –  ঝাড়খণ্ডের পাকুড়ে বিজেপির যুব সংগঠন ভারতীয় জনতা যুব মোর্চা এবং ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের কর্মীদের হাতে নিগৃহীত হওয়ার অভিযোগের পর এমনই মন্তব্য করলেন সমাজকর্মী অগ্নিবেশ।

একটি ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, অগ্নিবেশ ও তাঁর সহকর্মীদের সঙ্ঘবদ্ধ হয়ে পেটাচ্ছে যুব মোর্চা ও এবিভিপির কর্মীরা। ওই ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, ওই দুই সংগঠনের কর্মীরা হাতে কালো পতাকা নিয়ে স্লোগান দিতে দিতে ঘটনাস্থলে আসে। সেখানে এক কর্মী অগ্নিবেশকে সজোরে থাপ্পড় মারে। এর পর সম্মিলিত ভাবে ওই কর্মীরা ঝাঁপিয়ে পড়ে অগ্নিবেশ এবং তাঁর সহকর্মীদের উপর। এমনকি এই বিশিষ্ট সমাজকর্মীকে মাটিতে ফেলে বেধড়ক পেটাতে থাকে দুষ্কৃতীরা।


অগ্নিবেশ বলেন, “আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবেই কর্মসূচি পালন করছিলাম। আচমকা এক দল মানুষ স্লোগান দিতে দিতে আমাদের উপর চড়াও হন। তাঁদের দাবি, আমরা না কি হিন্দুত্ব-বিরোধী প্রচার করছি।”

পুরো ঘটনার যথাযথ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী রঘুবীর দাস। পাকুড়ের এসডিপিও অশোককুমার সিং জানিয়েছেন, আত্রমণকারীরা বেশি দূর পালাতে পারেনি। ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে ২০ জনকে আটক করা হয়েছে। তবে পাশাপাশি পুলিশ জানিয়েছ, অগ্নিবেশের ওই অনুষ্ঠান সম্পর্কে তাদের কাছে কোনো আগাম খবর ছিল না।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন