খাদ্যাভ্যাস নিয়ে বাঙালিকে চরম অপমান, ক্ষমা চেয়ে নিলেন পরেশ রাওয়াল

0

নয়াদিল্লি: গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ টেনেছেন বিজেপি নেতা পরেশ রাওয়াল (Paresh Rawal)। শুধু তাই নয়, সরাসরি বাঙালিদের খাদ্যাভ্যাস নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন অমদাবাদ পূর্বের প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ। যা নিয়ে শোরগোল বাঁধতেই ক্ষমা চেয়ে নিলেন বলিউড অভিনেতা।

মঙ্গলবার গুজরাতের ভালসাদে নির্বাচনী প্রচারে পরেশ বলেন, “বর্তমানে গ্যাস সিলিন্ডারের দাম যথেষ্ট বেশি, তবে এই দাম কমে যাবে। সাধারণ মানুষের কর্মসংস্থানও হবে। কিন্তু রোহিঙ্গা বা বাংলাদেশিরা দিল্লির মতো জায়গায় আপনার পাশেই বসবাস শুরু করলে কী হবে? তখন আপনি গ্যাস সিলিন্ডার নিয়ে কী করবেন? বাঙালিদের জন্য মাছ রান্না করবেন? গুজরাতের মানুষ মূল্য়বৃদ্ধি সহ্য করে নেবে, কিন্তু এটা নয়…যে ভাবে তাঁরা কুকথা ব্যবহার করেন, তাঁদের মাঝে থাকতে হলে সাধারণ মানুষকে মুখেও ডায়পার পরতে হবে।”

আদতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে নিশানা করতে গিয়েই এই মন্তব্য করেছিলেন পরেশ। কিন্তু বিষয়টা শুধুমাত্র আর দিল্লিতেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। বাঙালিদের খাদ্যাভ্যাস নিয়ে তাঁর তির্যক মন্তব্য নিয়েও সমালোচনার ঝড় বইছে। পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র সাকেত গোখলে বলেন, “বাঙালিদের জন্য তাদের “মাছ রান্না” করতে আপনার দরকার নেই। মনে রাখবেন আপনিও মহারাষ্ট্রে আপনার কেরিয়ার তৈরি করেছেন, যেখানে আমরা আপনাকে ভালোবেসে ঢোকলা এবং ফাফদা খাইয়েছি। গুজরাতে বিজেপির নির্দেশে আপনি বাংলার বিরুদ্ধে করা এ ধরনের ঘৃণ্য মন্তব্য প্রত্যাহার করুন এবং ক্ষমা চেয়ে নিন”।

এ ভাবেই পরেশের মন্তব্যের বিরুদ্ধে মুখ খোলেন অনেকেই। পরেশ “অবৈধ বাংলাদেশি এবং রোহিঙ্গা” বলার সময় “বাঙালি” শব্দটি ব্যবহার করায় এই প্রতিবাদ আরও জোরালো হয়।

ঘুরিয়ে ক্ষমা চাইবার জন্য টুইটারে পরেশ লেখেন, “অবশ্যই মাছ নিয়ে আলাদা করে বলা ঠিক হয়নি। গুজরাতের মানুষও মাছ খান। তবে স্পষ্ট করে বলতে চাই, বেআইনি ভাবে অনুপ্রবেশকারী বাংলাদেশি এবং রোহিঙ্গাদের বোঝাতে চেয়েছি আমি। কিন্তু এর পরেও যদি আপনার অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে থাকি, তা হলে ক্ষমা চাইছি”।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন