নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর কাছে লিখিত ক্ষমাপ্রার্থনা করলেন কংগ্রেস সাংসদ অধীররঞ্জন চৌধুরী। লোকসভায় দ্রৌপদীকে ‘রাষ্ট্রপত্নী’ বলে উল্লেখ করার জন্য সৃষ্টি হয় তুমুল বিতর্কের। গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলি সরে যায়। অধীরের মন্তব্য নিয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে সংসদের উভয় কক্ষ।

চিঠিতে অধীর লেখেন, “আপনার (রাষ্ট্রপতির) অবস্থান বর্ণনা করতে গিয়ে ভুল শব্দ ব্যবহারের জন্য আমি লিখিত ভাবে দু:খপ্রকাশ করছি। আমি আপনাকে আশ্বস্ত করতে চাই যে, এটা মুখ ফসকে হয়ে গিয়েছিল। আমি ক্ষমাপ্রার্থী এবং আপনাকে আমার আবেদন গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করছি”।

বৃহস্পতিবার এক মহা গন্ডগোলের সাক্ষী হয় লোকসভা। অধীরের ‘রাষ্ট্রপত্নী’ মন্তব্য নিয়ে শোরগোল সৃষ্টি করে বিজেপি। তীব্র প্রতিবাদে শামিল হন বিজেপির সাংসদ থেকে মন্ত্রীরাও।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির অভিযোগ, “বিতর্কিত মন্তব্যের মাধ্যমে সমগ্র আদিবাসী সম্প্রদায়, মহিলা, দরিদ্র ও নিপীড়িতদের অসম্মান করেছেন অধীর”। তাঁর কটাক্ষ, “নতুন রাষ্ট্রপতিকে কংগ্রেস যে ঘৃণার দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখছে, সেটাই উঠে এসেছে কংগ্রেস সাংসদের মন্তব্যে। এক জন আদিবাসী মহিলা দেশের রাষ্ট্রপতি হয়েছেন, সেটাই ‘হজম’ করতে পারছে না কংগ্রেস”।

যদিও প্রথম থেকেই অধীর দাবি করে আসছেন, নিছক মুখ ফসকে এই শব্দ বেরিয়ে গিয়েছিল। তৎক্ষণাৎ তিনি ভুল সংশোধন করে নেন। এমনকী, বৃহস্পতিবার একটি দীর্ঘ ভিডিও বার্তাতেও ক্ষমাপ্রার্থনা করেন পশ্চিমবঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি।

বিজেপি নেতৃত্বের আচরণ দেখে তিনি বলেন, “আমাকে সন্ত্রাসবাদী আখ্যা দিয়ে ইউএপিএ-এর অধীনে বিজেপি হয়তো আমাকে গ্রেফতার করবে। আসলে তারা (বিজেপি) আদিবাসী সমাজের কাছে চ্যাম্পিয়ন হতে চায়। আদিবাসীরা কী ভাবে খুন হয়ে যাচ্ছে, সেটাকে চেপে রাখতে চায়। তারা আইন পরিবর্তন করে আদিবাসীদের বিরুদ্ধে কাজ করছে”।

একই সঙ্গে তিনি বিজেপি-র বিরুদ্ধে মূল্যবৃদ্ধি, জিএসটি, অগ্নিপথ প্রকল্প, বেকারত্ব এবং অন্যান্য বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা থেকে নজর ঘুরিয়ে দেওয়ার অভিযোগও করেছেন। তাঁর সাফ কথা, রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইলেও ‘ভন্ডদের’ কাছে নয়।

আরও পড়তে পারেন: 

নবম-দশম নতুন নিয়োগ তালিকা প্রকাশের নির্দেশ, আন্দোলনকারীদের বার্তা হাইকোর্টের

সেনসেক্সের লম্বা লাফ, শক্তিশালী জায়গায় নিফটি, সপ্তাহের শেষ কেনাবেচার দিনে বাজারের মোড় ঘুরল যে সব কারণে

প্রবল বৃষ্টিতে ভাসল কলকাতার একাংশ, শুকনো থাকল অন্য অংশ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন