লখনউ: যা ভাবা হয়েছিল, সেটাই হল। রাজ্যের সমস্ত কসাইখানা বন্ধ করার নির্দেশ দিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এই মর্মে পরিকল্পনা তৈরি করার জন্য রাজ্যের পুলিশকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। তবে কী ধরনের কসাইখানা বন্ধ করে দেওয়া হবে তা পরিষ্কার করে জানানো হয়নি। 

মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশ পাওয়ার প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই কাজে নেমে পড়েছে লখনউ পৌরনিগম। শহরে ন’টি বেআইনি মাংসের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পৌরনিগমের হিসেব বলছে প্রায় আড়াইশোটি মাংসের দোকান শহরে রয়েছে, সেগুলিও ক্রমে ক্রমে বন্ধ করে দেওয়া হবে। পৌরনিগমের পশু বিষয়ক মুখ্য অফিসার এ কে রাও জানিয়েছেন, “শহরে অনেক মাংসের দোকান রয়েছে যারা নিয়ম মানছে না। সবার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”  লখনউয়ের পাশাপাশি রাজ্য জুড়ে অবস্থিত সমস্ত কসাইখানায় তল্লাশি চালানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:  আদিত্যনাথের রাজ্যে বন্ধ ২ কসাইখানা, সব বন্ধ হলে রাজস্ব ক্ষতি প্রায় সাড়ে ১১ হাজার কোটি

কসাইখানা বন্ধের পাশাপাশি গরু পাচারও বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদিত্যনাথ। সেই নির্দেশ পালন করতে লখনউয়ের আশেপাশে এগারোটি জেলায় নজরদারি শুরু করেছে পুলিশ। গরু পাচারকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সব জেলার পুলিশ আধিকারিকদের নির্দেশ দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের ডিজিপি জাভেদ আহমেদ। 

প্রসঙ্গত রাজ্যের সমস্ত কসাইখানা বন্ধ করার ব্যাপারে নিজেদের নির্বাচনী ইস্তেহারেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বিজেপি। পার্টির সভাপতি অমিত শাহও বলেছিলেন ক্ষমতায় এলে কসাইখানা বন্ধ করে দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, কসাইখানা বন্ধ হয়ে গেলে সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব হারাবে উত্তরপ্রদেশ এবং সেই সঙ্গে রাজ্যের রোজগেরে মানুষের একটা বড়ো অংশ বেকার হয়ে পড়বে।

 

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন