Connect with us

দেশ

‘আদিবাসী মহিলাদের বিবস্ত্র করে অত্যাচার করা হয়’, ফেসবুকে বিস্ফোরক পোস্ট রায়পুর জেল আধিকারিকের

রায়পুর: নকশাল দমনে আদিবাসীদের ওপর পুলিশি অত্যাচারের অভিযোগ নতুন কিছু নয়। সেই অভিযোগ যে সত্যি সে ব্যাপারে মুখ খুললেন স্বয়ং এক জেল আধিকারিক। জানিয়ে দিলেন, তিনি নিজের চোখে দেখেছেন জেলের মধ্যে কী ভাবে মানবাধিকারের বিভিন্ন সীমা লঙ্ঘন করা হয়েছে।

২৪ এপ্রিল সুকমায় সিআরপিএফ জওয়ানদের ওপর হামলার কিছু দিন পরেই নিজের ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন রায়পুর জেলের ডেপুটি সুপারিন্টেনডেন্ট বর্ষা ডোঙ্গরে। সেই পোস্টটি নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পরেই অবশ্য তা মুছে দেন তিনি। কিন্তু তিনি যা লিখেছিলেন তা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হয়ে যায়।

আরও পড়ুন: আদিবাসী-নিগ্রহের বিরুদ্ধে মুখ খুলে সাসপেন্ড হলেন রায়পুরের সেই জেল আধিকারিক

শুধু জেলের মধ্যে নয়, নকশাল দমনের নামে যে ভাবে আদিবাসীদের তাদের জমি থেকে বিতাড়িত করে রাজ্য সরকার তা দখল নিচ্ছে, সে ব্যাপারেও বিস্ফোরক এই আধিকারিক।

তাঁর কথায়, “আমার মনে হয় আমাদের আত্মসমীক্ষা করার প্রয়োজন হয়েছে। দু’পক্ষেই যারা মারা যাচ্ছে তারা আমাদের নিজেদেরই লোক। তারা সবাই ভারতীয়। তাই সব মৃত্যুই দুঃখজনক। কিন্তু আদিবাসীদের ওপর পুঁজিবাদী ব্যবস্থাকে চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। মহিলাদের রেপ করা হচ্ছে, ভয় দেখানো হচ্ছে যাতে তারা নিজেদের জমি, জঙ্গল ছেড়ে চলে যায় এবং সেই জমি রাষ্ট্রের হাতে দিয়ে যায়। আদিবাসী মহিলাদের নকশাল হিসেবে সন্দেহ করে তাঁদের স্তন এমন ভাবে মোচড়ানো হয় যাতে দেখা হয় তাতে দুধ আসছে কিনা। সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়িত করার জন্য তাদের নিজেদের জমি থেকে বিতাড়িত করে জোর করে জমি দখল করে নেওয়া হচ্ছে। এটা কি শুধুমাত্র নকশাল শেষ করার জন্য করা হচ্ছে! আমার তো মনে হয় না। আসল কথা হল, এখানকার জঙ্গলগুলি খনিজ সম্পদে সমৃদ্ধ, এবং সেগুলি পুঁজিবাদীদের বিক্রি করার জন্য জঙ্গল ফাঁকা করতেই হবে।”

আরও পড়ুন: আদিবাসী মহিলাদের ওপর যৌন নিগ্রহের বদলা নিতেই সুকমা হামলা, জানাল মাওবাদীরা

জেল আধিকারিক আরও লিখেছেন, “কিন্তু আদিবাসীরা সেই জমি ছাড়বে না, কেনই বা ছাড়বে! তারা চায় নকশালবাদ শেষ হোক, কিন্তু রাষ্ট্রের রক্ষক যদি তাদের মেয়েদের রেপ করে, গ্রাম জ্বালিয়ে দেয় এবং মিথ্যে মামলায় জেলে পুরে দেয়, তারা ন্যায়বিচার পাওয়ার জন্য কার কাছে যাবে? যদি কোনো মানবাধিকার কর্মী বা সাংবাদিক সত্য যাচাই করতে আসেন, তা হলে তাদেরও মিথ্যে মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে। এটাই বাস্তব। আমি নিজে দেখেছি কী ভাবে একজন ১৪ বছর বয়সি এবং একজন ১৬ বছর বয়সি কিশোরীকে থানায় এনে বিবস্ত্র করে অত্যাচার করা হচ্ছে। তাদের গায়ে ইলেকট্রিক শক দেওয়া হচ্ছে। আমি ওদের গায়ে সেই অত্যাচারের দাগ দেখেছি । নাবালিকাদের ওপর এ রকম অত্যাচারের কারণ কী! আমি ওদের শুশ্রূষার ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিয়েছিলাম।”

“আমাদের সংবিধান কাউকে কারও ওপর অত্যাচারের কোনো অধিকার দেয়নি। আমাদের জাগার সময় হয়েছে। আদিবাসীদের ওপর কোনো বিশেষ ধরনের উন্নয়ন চাপিয়ে দেওয়া উচিত নয়। আদিবাসীরা প্রকৃতির রক্ষক। আমাদেরও রক্ষক হওয়া উচিত, ভক্ষক নয়। চাষি এবং জওয়ান একে অপরের ভাই। একে অপরকে মারলে শান্তিও স্থাপন হবে না এবং তা উন্নয়নও নিয়ে আসবে না। সংবিধান সবার এবং সবাইকে ন্যায় পেতে হবে।”

শেষ করার আগে তিনি লেখেন, “আমাদের হাতে এখনও সময় আছে। আমরা যদি এখনও রুখে না দাঁড়াই তা হলে পুঁজিবাদীরা আমাদের দাবার ঘুঁটির মতো ব্যবহার করে মানবতাকেই এই দেশ থেকে মুছে দিতে চাইবে। অন্যায় যেমন করব না, তেমন অন্যায় সহ্যও করব না, এই পণ আমরা করি। সংবিধান দীর্ঘজীবী হোক, ভারত দীর্ঘজীবী হোক।”

পোস্টটির ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে রাজ্যের ডেপুটি ইনস্পেক্টর জেনালের কেকে গুপ্তা অবশ্য পুরো দোষটাই চাপিয়ে দেন বর্ষাদেবীর ওপরে। তিনি বলেন, “আমরা খবর পেয়েছি যে নকশাল সমস্যার ব্যাপারে আপত্তিকর কিছু মন্তব্য নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন ওই ডেপুটি সুপারিন্টেনডেন্ট। প্রাথমিক ভাবে তাঁর বিরুদ্ধে একটা তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বর্ষাদেবী নিজে এই মন্তব্য করেছেন, না কি কোনো চাপে পড়ে করেছেন, সব খতিয়ে দেখা হবে। সেই সঙ্গে তাঁকে আত্মপক্ষ সমর্থনেরও সুযোগ দেওয়া হবে।”

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার বিরুদ্ধে এর আগেও সরব হয়েছিলেন বর্ষা। ২০০৩-এ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষায় দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৬-তে ছত্তীসগঢ় আদালতে একটি মামলা করেছিলেন তিনি। সেই মামলায় জেতার পর তাঁকে ডেপুটি জেল সুপারিন্টেনডেন্ট হিসেবে নিয়োগ করা হয়। তাঁর পোস্টটির ব্যাপারে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, “পোস্টের ব্যাপারে আমি এখন কিছুই বলব না। উপযুক্ত জায়গায় আমি যা বলার বলব।”

দেশ

ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক রক্তের, বললেন নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

ঋদি হক: ঢাকা

ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ককে রক্তের সম্পর্ক বলে বর্ণনা করলেন বাংলাদেশের (Bangladesh) নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (Khalid Mahmud Chowdhury)।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময়ে যে সম্পর্ক তৈরি হয়েছে, সেটি রক্তের সম্পর্ক। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময়ে ভারতীয়রা রক্ত ও আশ্রয় দিয়েছে। তখন থেকেই ভারতের (India) সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক অত্যন্ত সুস্থ ও সবল। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যে সাংস্কৃতিক বন্ধন রয়েছে, তা পৃথিবীর আর কোনো দেশের সঙ্গে নেই। তাই এ সম্পর্কটি কখনোই দুর্বল হওয়ার নয়। এ নিয়ে নতুন করে কথা বলার কিছু নেই।

বৃহস্পতিবার নৌপরিবহণ মন্ত্রকে মন্ত্রীর সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেন ভারতের বিদায়ী হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাস (Riva Ganguly Das)। এর পর প্রতিমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বাংলাদেশের নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ভারতের কিছু চুক্তি, প্রকল্প ও কার্যক্রম রয়েছে। দু’ দেশের সংযোগ বাড়াতে নৌপথ অন্যতম একটা মাধ্যম হতে পারে। আমরা আলোচনা করে বিষয়গুলো এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।

রিভা গাঙ্গুলি দাস বলেন, নৌপরিবহণ মন্ত্রকের সঙ্গে তাঁরা খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে কাজ করে থাকেন। ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক স্বাভাবিক রয়েছে। অনেক কাজ হয়েছে। কোভিডের মধ্যেও এক সঙ্গে কাজ হয়েছে। এটা সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হওয়ার কারণেই হয়েছে। এখানে বাণিজ্য-ট্রেন চলছে। সরবরাহের শৃঙ্খলটি ঠিক আছে। বরং অনেক বেশি সুচারু হয়েছে। এখানে অনেক চুক্তি হয়েছে। এক সঙ্গে অনেক প্রকল্পে কাজ হচ্ছে।

বিদায়ী হাইকমিশনার বলেন, “ওভারঅল আমরা খুবই খুশি। এটা দু’ দেশের জন্য উইন-উইন অবস্থান। আমাদের ট্রেড বাড়বে। এটাতে বাংলাদেশেরও লাভ হবে, কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।”

রিভা গাঙ্গুলি দাস বলেন, বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে জাহাজ চলাচলের স্ট্যান্ডার্ড অপারেটর প্রসিডিউর (এসওপি) স্বাক্ষরের আলোকে ট্রায়াল ইতিমধ্যে হয়ে গেল। এখন বাকি কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে কোনো অসুবিধা নেই। সেটা সহজ ভাবে হয়ে যাবে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে ভারতীয় ভিসার বিষয়ে ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, অতি জরুরি চিকিৎসা ও ব্যবসায়িক ভিসা দেওয়া হচ্ছে। এখন নরমাল ভিসার ব্যাপারে চেষ্টা চলছে। তবে তা নির্ভর করছে কোভিড ও ফ্লাইট চলাচলের ওপর।

Continue Reading

দেশ

পাইলট-গহলৌতের করমর্দনের মধ্যে দিয়ে যবনিকা পতন রাজস্থানের রাজনৈতিক নাটকের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নাটক শুরু হয়েছিল পরিষদীয় দলের এক বৈঠক থেকে। নাটক শেষ হল পরিষদীয় দলের আরও এক বৈঠকের মধ্যে দিয়ে।

সব টানাপড়েনের অবসান ঘটিয়ে অশোক গহলৌতের বাড়ি পৌঁছোলেন সচিন পাইলট। হাসিমুখে করমর্দন করলেন দু’ জন। বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে শুরু হয়েছে পরিষদীয় দলের বৈঠক। শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া বিশেষ অধিবেশনের আগে রণনীতি ঠিক করতেই এই বৈঠক হচ্ছে।

কংগ্রেসে পাইলটের প্রত্যাবর্তন অনেকেই মেনে নিতে পারেননি। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী সচিন পাইলটের কংগ্রেসের আগমনে হতাশ হয়ে পড়েন অশোক গহলৌতের সমর্থনে থাকা বিধায়করা। তবে সেই হতাশা থেকে অন্য রকম কোনো চিন্তাভাবনা তাঁরা করেননি। সেই হতাশা দূর করতে এ বার আসরে নামতে হয়েছে গহলৌতকেই।

তাঁর শিবিরের বিধায়কদের গহলৌত বুধবার বলেন, “ক্ষমা করে দিন, ভুলে যান, এগিয়ে চলুন।”

পাইলট এবং তাঁর সমর্থনে থাকা বিধায়কদের ফিরে আসা নিয়ে গহলৌত শিবিরের বিধায়করা যে হতাশ ছিলেন, সেটা মেনে নেন গহলৌতও। তিনি বলেন, “বিধায়কদের হতাশ হয়ে পড়া খুবই স্বাভাবিক। গত এক মাস ধরে যে ধরনের ঘটনা ঘটেছে, তাতে এমন হতাশা অস্বাভাবিক কিছু নয়। কিন্তু আমি সবাইকে বুঝিয়েছি যে দেশ, রাজ্য চালাতে গেলে আর গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হলে এমন অনেক কিছু মেনে নিতে হয়।”

বৃহস্পতিবার আরও দু’টি ঘটনা ঘটেছে রাজস্থান কংগ্রেসে। পাইলট শিবিরে থাকা দুই বিধায়ক ভাঁওয়ার লাল শর্মা আর বিশ্ববেন্দ্র সিংহের ওপর থেকে সাসপেশন প্রত্যাহার করে নিয়েছে কংগ্রেস। অন্য দিকে রাজস্থান সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছে বিরোধী বিজেপি।

বিজেপি এই প্রস্তাব নিয়ে আসায় রাজস্থান বিধানসভায় আস্থাভোট হচ্ছেই। তবে পাইলট শিবির ফিরে আসায় আস্থাভোটের সেই বৈতরণী খুব সহজেই গহলৌত সরকার পেরিয়ে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। পাইলট আর গহলৌত মুখোমুখি হওয়ায় এ বার দু’ জনের মধ্যে রসায়ন কেমন হতে চলেছে, সেই দিকেই তাকিয়ে রয়েছে রাজনৈতিক মহল।

Continue Reading

দেশ

মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে আসছে বিজেপি

শুক্রবার রাজস্থান বিধানসভার বিশেষ অধিবেশনে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে আসছে বিরোধী দল বিজেপি।

ওয়েবডেস্ক: প্রায় একমাসের নাটকীয় ঘটনাক্রমে ইতি পড়েছে। কংগ্রেসে ফিরে এসেছেন ‘বিদ্রোহী’ সচিন পাইলট (Sachin Pilot)। তবে আগামী শুক্রবার রাজস্থান বিধানসভার বিশেষ অধিবেশনে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে আসছে বিরোধী দল বিজেপি।

গত বুধবারই জৈসলমের থেকে জয়পুরে ফিরেছেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত শিবিরের বিধায়কেরা। বৃহস্পতিবার রাজস্থান বিধানসভার বিরোধী দলনেতা গুলাবচাঁদ কাটারিয়া (Gulab Chand Kataria) জানান, মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত (Ashok Gehlot) সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা নিয়ে আসবে বিজেপি।

তিনি সংবাদ মাধ্যমের কাছে জানান, “আগামীকাল (শুক্রবার) আমরা বিধানসভায় অনাস্থা প্রস্তাব ( no-confidence motion) নিয়ে আসব। আমাদের শরিকরাও সমর্থন জানাবেন”।

অন্য দিকে ছয় বিএসপি বিধায়কের কংগ্রেসে মিশে যাওয়ার ঘটনার বিরুদ্ধে বিজেপি বিধায়ক মদন দিলওয়ারের মামলাটির শুনানি আগামী শুক্রবারেই হতে চলেছে রাজস্থান হাইকোর্টে। ছয় বিধায়ক সন্দীপ যাদব, ওয়াজিব আলি, দীপচাঁদ খেরিয়া. লক্ষণ মীনা, যোগেন্দ্র আওয়ানা এবং রাজেন্দ্র গুঢ়ার কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা করেছে বিজেপি। বিধানসভায় শক্তিপরীক্ষা হলে তাঁরা ভোটাধিকার পাবেন কি না, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

খাতায়-কলেম দলগুলির বিধায়ক সংখ্যা

২০১৮ সালে বিধানসভার ভোট হয় রাজস্থানে। গত বছর একটি আসনে উপ-নির্বাচন হয়। খাতায়-কলমে কংগ্রেস এবং বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা যথাক্রমে ১০৭ এবং ৭২। অন্য দিকে জোটের পরিসংখ্যানে কংগ্রেস এবং বিজেপির দিকে রয়েছেন যথাক্রমে ১২৪ এবং ৭৬ জন বিধায়ক। তবে সেই অঙ্ক এখন ভিতরে ভিতরে অনেকটাই পরিবর্তিত। তবে দলের বিরুদ্ধে যড়যন্ত্রমূলক চক্রান্তের অভিযোগে দলীয় সদস্যপদ থেকে বরখাস্ত দুই বিধায়ক ভানওয়ার লাল শর্মা এবং বিশ্ববেন্দ্র সিংয়ের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করেছেন গহলৌত।

সূত্রের খবর, বেশ কয়েকজন কংগ্রেস বিধায়ককে সঙ্গে নিয়ে সচির বিদ্রোহ ঘোষণা করার পরেও অশোক গহলৌতের পক্ষে ১০২ জন বিধায়কের সমর্থন ছিল, যা সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে মাত্র একটা বেশি। কিন্তু বিএসপির ছ’জনকে বাদ দিলে সেই সংখ্যা ৯৬-এ নেমে আসতে পারে। ২০০ আসনের রাজস্থান বিধানসভায় বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা ৭২। বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়ক এবং তিনজন নির্দল বিধায়ক মিলে সেই সংখ্যা ৯৭-এ পৌঁছাতে বলে অনুমান। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য ১০১টি আসনের থেকে তা কম!

এই সংক্রান্ত আরও খবর পড়তে পারেন এখানে: অশোক-সচিন দ্বৈরথ

Continue Reading
Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন

Advertisement
শিল্প-বাণিজ্য9 hours ago

লকডাউনেও ২২ শতাংশ নিট মুনাফা বাড়ল বিপিসিএলের

রাজ্য10 hours ago

আক্রান্তের সংখ্যায় রেকর্ড, তবে দীর্ঘদিন পর রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের হার নামল দশ শতাংশের নীচে

বিজ্ঞান10 hours ago

অক্সফোর্ড করোনা ভ্যাকসিন আপডেট: নভেম্বরের মধ্যে শেষ হবে হিউম্যান ট্রায়াল

গাড়ি ও বাইক11 hours ago

ব্যাটারি ছাড়াই কেনা যাবে ইলেকট্রিক গাড়ি, নির্দেশ কেন্দ্রের

অনুষ্ঠান11 hours ago

রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টির হাত ধরে প্রয়াত অমলা শঙ্করের প্রতি অনলাইন অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধাঞ্জলি অগ্নিবীণা ডান্স অ্যাকাডেমির

দেশ11 hours ago

ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক রক্তের, বললেন নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

রাজ্য11 hours ago

পেশাগত রোগ সিলিকোসিসে ঝরছে শ্রমিকের প্রাণ! দায় নেবে কে?

ক্রিকেট12 hours ago

কোহলি-স্মিথ-উইলিয়ামসনরা অভিষেক করার আগে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন তিনি, ফের সুযোগ পেলেন বৃহস্পতিবার

কেনাকাটা

care care
কেনাকাটা18 hours ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

কেনাকাটা1 week ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা1 week ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

কেনাকাটা1 week ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা2 weeks ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা2 weeks ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা3 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা4 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা4 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

নজরে

Click To Expand