ক্ষমতায় ফিরতেই মোদীকে নিয়ে ‘ভুল’ সংশোধন টাইম ম্যাগাজিনের!

0

ওয়েবডেস্ক: সাত দফার লোকসভা ভোট শেষ হয় গত ১৯ মে। পর দিন ২০ মে দিনাঙ্কিত ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদ কাহিনির শিরোনাম ছিল- “ইন্ডিয়া’জ ডিভাইডার ইন চিফ”। ফলাফল ঘোষণার পর সেই টাইম ম্যাগাজিনেরই প্রচ্ছদ কাহিনির শিরোনাম বদলে হয়ে গেল- “মোদী হ্যাজ ইউনাইটেড ইন্ডিয়া লাইক নো প্রাইম মিনিস্টার ইন ডিকেডস”।

ভোট চলাকালীনই আমেরিকার টাইম ম্যাগাজিনের আগামী সংখ্যার মলাট-কাহিনি নিয়ে দেশজোড়া বিতর্কের সূত্রপাত হয়ে যায়। ২০ মে মূদ্রণ সংখ্যায় ওই নিবন্ধটি প্রকাশিত হলেও ডিজিটালে চলে আসে তার আগেই। টাইম-এর ওই সংখ্যার প্রচ্ছদ কাহিনির শিরোনাম “ইন্ডিয়া’জ ডিভাইডার ইন চিফ”। সঙ্গে ছিল মোদীর একটি ছবিও। নরেন্দ্র মোদী সরকারের পাঁচ বছরের নানান তথ্য সম্বলিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় টাইম-এর ওই ইস্যুতে।

বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি মোদীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলতেন, ভারতের বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী বিভেদের রাজনীতি করেন। টাইম-এর এই প্রচ্ছদ কাহিনিতেও সেই অভিযোগই মান্যতা পাওয়ায় সমালোচনা আরও তীব্র করেন বিরোধীরা।

তবে ৩০৩টি আসনে জয় ছিনিয়ে নিয়ে ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন করতেই টাইম-এর নিবন্ধের শিরোনামও একশো আশি ডিগ্রি ঘুরে গেল। এ বারের নিবন্ধটির লেখন মনোজ লাডওয়া, যিনি লন্ডন ভিত্তিক সংবাদপত্র গোষ্ঠী ইন্ডিয়া আইএনসি গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা এবং চিফ এক্সিকিউটিভ।

ওই নিবন্ধে লাডওয়া লিখেছেন, “নরেন্দ্র মোদীর প্রথম দফায় এবং এ বারের ম্যারাথন নির্বাচনকালে তাঁকে কড়া এবং অন্যায় সমালোচনার মুখে পড়তে হলেও দেশের অন্য কোনও প্রধানমন্ত্রী গত পাঁচ দশকের মধ্যে ভোটারদের এ ভাবে ঐক্যবদ্ধ করতে পারেননি”।

স্বাভাবিক ভাবেই ‘বিভেদের হোতা’ থেকে ‘অখণ্ডতার হোতা’য় রূপান্তরকে ‘ভুল’ সংশোধন হিসাবেই দেখছেন ওয়াকিবহাল মহল।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.