income tax

নয়াদিল্লি: নোটবন্দির পর জিএসটি। তারপর কী? দেশের আর্থিক ক্ষেত্রে বড়োসড়ো সংস্কারে এনডিএ সরকারের পরবর্তী পদক্ষেপের নিশানা হয়ে উঠতে চলেছে চাকরিজীবী সম্প্রদায়ের আয়ের উপর কর সংস্কার।

অর্থমন্ত্রক সূত্রে খবর, কেন্দ্র চাকরিজীবীদের বেতন কাঠামোর দিকে তাকিয়ে কর ছাড়ের বিষয়ে উদার হতে পারে। এ ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতনের চাকরিজীবীর আয়কে পুরোপুরি কর মুক্ত করে দিতে পারে, যা আগের যে কোনো কাঠামোর থেকে অনেকটাই শিথিল হবে। ওই মেগা সংস্কারের দিকে তাকিয়েই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং অর্থ মন্ত্রক সেই পরিমাণ চূড়ান্ত করছে। জানা গিয়েছে, এ বারের বাজেটে ঘোষিত না হলেও, অর্থমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায়, বেতনভোগী কর্মচারীদের জন্য এই ধরনের প্রক্রিয়াটি চালু করার কথা তুলে ধরতে পারেন।

অর্থমন্ত্রকের আধিকারিকরা বলছেন, মন্ত্রী উপলব্ধি করেছেন, এই বেতনভোগী কর্মচারীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের আয়ের প্রকৃতিগত পার্থক্য রয়েছে। তাছাড়া ব্য়বসায়ীদেরও বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর ছাড় দেওয়ার নিয়ম রয়েছে। যেমন কোনো ব্যবসায়ী নিজের অফিস ভাড়া, গাড়ির ড্রাইভারের বেতন, অফিসের নিজস্ব বিনোদন মূলক ব্যয় বা ভ্রমণের খরচে কর ছাড় পান।

চাকরিজীবীদের ক্ষেত্রে সে সবের কোনো বালাই নেই। আয়ের পরিমাণ অনুযায়ী গড়ে তাঁদের কর দিতে হয়। এমনকী নিজের কর্মকুশলতা বাড়াতে যদি কোনো অর্থের প্রয়োজন হয়, তা নিজের পকেট থেকেই দিতে হয়। সে সবের জন্যও পৃথক কোনো কর ছাড়ের ব্যবস্থা নেই। আবার ঘর ভাড়া হিসাবে বার্ষিক ১৫ হাজার টাকার ছাড় যে বর্তমান সময়োপযোগী নয়, তা বলাই বাহুল্য। সে দিকে তাকিয়েই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বেতনভোগীদের প্রতি উদার হতে চাইছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন