খবরঅনলাইন ডেস্ক: কেরলের (Kerala) হাতিহত্যার ঘটনায় তোলপাড় হয়েছিল দেশ। সেই ঘটনার কয়েক দিনের মধ্যেই হিমাচলে একটি গোরুকে বাজি ভরতি খাবার খাইয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আরও এক নৃশংসতার নজির দেখল দেশ। এ বার ঘটনাস্থল অসম (Assam)।

চিতাবাঘকে (Leopard) শুধু পিটিয়ে মারাই নয়, তাঁর দেহ টুকরো টুকরো করে পৈশাচিক উল্লাসে মাতলেন গ্রামবাসীরা। এখানেই থেমে থাকেননি গ্রামবাসীরা। ভাইরাল হওয়া ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে চিতাবাঘের মৃতদেহটি নিয়ে ট্রফির মতো করে ধরে মিছিল করছেন তাঁরা।

রবিবার সকালে এই ঘটনার খবর পায় স্থানীয় প্রশাসন। গুয়াহাটির ফাটাসিল রিজার্ভ ফরেস্ট হিলকস এলাকায় চিতাবাঘ ধরার জন্য বে-আইনিভাবে ফাঁদ পেতেছিলেন এক স্থানীয়। সেই ফাঁদে চিতাবাঘটি পড়ে গেলে এলাকার বাসিন্দারা তাকে পিটিয়ে হত্যা করে।

তবে নৃশংসতার নজির গড়তে এর পর মৃত বাঘটিকে স্থানীয়রা টুকরো টুকরো করে কেটে ফেলেন। ঘটনার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই পুলিশ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে। চিতাবাঘটির দেহাংশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। পুলিশ জানিয়েছে, তদন্তে যাঁরা দোষী প্রমাণিত হবেন, তাঁদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।

তবে চিতাবাঘকে হত্যা করে বিশেষ কোনো ভ্রূক্ষেপ নেই গ্রামবাসীদের। তাঁদের দাবি, চিতাবাঘের ‘তাণ্ডবের’ জন্য বাড়ির গৃহপালিত পশু, পোল্ট্রি মুরগি রাখা দায় হয়েছিল তাদের। প্রতিটা দিন তাঁরা আতঙ্কে কাটাচ্ছিলেন।

এই জন্যই মারার পর রাগের বশে তার দেহ টুকরো টুকরো করে ছাল ছাড়িয়ে নেওয়া হয়। উপড়ে ফেলা হয় চিতাবাঘের দাঁত, নখ। ঘটনার জেরে স্তম্ভিত পশুপ্রেমীরা।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন