mamata modi siddharamaya

নয়াদিল্লি: কেন্দ্রের প্রস্তাবিত ৫০ কোটি মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচি থেকে আগেই সরে দাঁডানোর কথা ঘোষণা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ বার সেই একই পথ অনুসরণ করলেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া। শুক্রবার কর্নাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, তাঁরা জনগণের স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে অনেক বেশি এগিয়ে আছেন মোদী কেয়ারের থেকে।

কেন্দ্রীয় বাজেটেই এই জাতীয় স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচির ঘোষণা করা হয়। পরে যা ‘মোদী কেয়ার’ নামেই পরিচিতি পেয়ে গিয়েছে। এই প্রকল্পে বলা হয়েছে, পরিবার পিছু পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বার্যিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা দেওয়া হবে ওই প্রস্তাবিত প্রকল্পে।

কিন্তু এর জন্য যে ব্যয় হবে তার ৪০ শতাংশ ভার বহন করতে হবে রাজ্য সরকারগুলিকে। এখানেই প্রথম আপত্তি তোলেন মমতা। তিনি বলেছিলেন, একটি ত্রিস্তরীয় প্রকল্প চালু করা হবে বলে বাজেটে ঘোষণা করা হয়ে গেল। অথচ সেই প্রকল্পে রাজ্যগুলিকে টাকা জোগাতে হলেও তাদের সঙ্গে কোনো কথা বলা হল না কেন?

অন্য দিকে তিনি দাবি করেন, পশ্চিমবঙ্গে ইতিমধ্যেই ৫০ লক্ষ মানুষকে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের মাধ্যমে বিনা মূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার কাজ চলছে। ফলে পৃথক ভাবে মোদী কেয়ারের নামে অতিরিক্ত অর্থ রাজ্য সরকার খরচ করতে পারবে না।

কতকটা একই অভিযোগে সরে দাঁড়াচ্ছে কর্নাটকও। সে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রমেশ কুমার এই প্রকল্পের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, কর্নাটক সরকার দীর্ঘ দিন আগেই এই ধরনের স্বাস্থ্য প্রকল্প চালু করে দিয়েছে। ফলে নতুন করে আর কোনো উদ্যোগের প্রয়োজন নেই।

অন্য দিকে কেরলের অর্থমন্ত্রী থমাস আইজ্যাকও প্রশ্ন তুলেছেন, রাষ্ট্রীয় স্বাস্থ্য বিমা যোজনা থাকা সত্ত্বেও কেন মোদী কেয়ার চালুর কথা ঘোষণা করা হল? সরকারের উচিত পুরনো প্রকল্পটিতেই বরাদ্দ বৃদ্ধি করা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here