‘ডিপার্টমেন্ট অব মিলিটারি অ্যাফেয়ার্স’-এর লেফটেন্যান্ট জেনারেল অনিল পুরী। ছবি: এএনআই-এর সৌজন্যে

নয়াদিল্লি: সেনাবাহিনীতে নিয়োগের নতুন প্রকল্প ‘অগ্নিপথ’ নিয়ে বিক্ষোভ চলছে সারা দেশে। রবিবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহের সঙ্গে একটি বৈঠকে করে সেনার তিন বাহিনী। ওই বৈঠকের পর যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে সেনার তরফে জানিয়ে দেওয়া হল, সব দিক মাথায় রেখেই এই পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্প প্রত্যাহার করে নেওয়ার কোনো প্রশ্নই নেই।

পদাতিক, বায়ুসেনা এবং নৌসেনার শীর্ষকর্তারা সংবাদিক বৈঠকে এই প্রকল্পের বিভিন্ন দিকগুলির ব্যাখ্যা করেন। লেফটেন্যান্ট জেনারেল অনিল পুরী বলেন, “এই সংস্কারের প্রয়োজন ছিল। দীর্ঘদিন ধরে এই সংস্কারের চেষ্টা করা হচ্ছে। সেনাবাহিনীতে তারুণ্যে জোর দিয়েই এই প্রকল্প। ১৯৮৯ সালে এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। সংস্কারের পদক্ষেপ হিসেবেই সিডিএস-এর নিয়োগ করা হয়। দীর্ঘ আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত”।

তিনি আরও বলেন, “ভবিষ্যতে দেশে যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হলে প্রযুক্তির উপরে ভর করেই এগোতে হবে। তরুণ প্রজন্ম মোবাইল-কম্পিউটার নিয়েই বড়ো হয়েছে। যুব সমাজ সার্বিক ভাবেই প্রযুক্তির দিক থেকে অনেক এগিয়ে। সে কথা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে”।

১৯৯৯ সালের কার্গিল যুদ্ধের একটি কমিটি রিপোর্টের উদ্ধৃত করে লেফটেন্যান্ট জেনারেল বলেন, প্রচুর সংখ্যক সেনার বয়স ৩০-এর ঘরে ছিল এবং এই বয়সের কারণটিই উদ্বেগজনক হয়ে উঠেছে।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, বিক্ষোভ এবং অগ্নিসংযোগের কারণে ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্প প্রত্যাহারের কোনো প্রশ্ন নেই। ইতিমধ্যেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সশস্ত্র বাহিনী শৃঙ্খলার পক্ষে অবস্থান করে এবং শুধুমাত্র শৃঙ্খলাবদ্ধ আবেদনকারীরা বাহিনীতে যোগ দেয়। এত দিন ধরে কোভিড মহামারি এবং লকডাউন ছিল। অগ্নিপথ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য এর চেয়ে ভালো সময় আর হতে পারত না।

আরও পড়তে পারেন:

অনুগামীদের চুপচাপ বসে যাওয়ার বার্তা, বঙ্গ-বিজেপিতে বিদ্রোহের আবহে দুধকুমারের পাশে অনুপম

বিহার জ্বলছে, বিজেপি-জেডিইউ নিজেদের মধ্যে লড়ছে! ‘অগ্নিপথ’ বিক্ষোভ নিয়ে মুখ খুললেন প্রশান্ত কিশোর

পওয়ার-আবদুল্লা সরে দাঁড়িয়েছেন, রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নামেই সায় দেবে সিপিএম

অগ্নিগর্ভ বিহারে রবিবার ভোর চারটে থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বন্ধ ট্রেন পরিষেবা

কেকে-র অনুষ্ঠানের জন্য ৫০ লক্ষ টাকা এল কোথা থেকে? প্রশ্ন তুললেন সৌগত রায়

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন