আমদাবাদ: প্যারিস, ভিয়েনা, কায়রো, ব্রুসেলস, রোম ও এডিনবরার দলে নাম লেখাল আমদাবাদ। বিশ্ব ঐতিহ্যের শিরোপা পেল ৬০০ বছরের প্রাচীন এই শহর। আমদাবাদই ভারতের প্রথম শহর যা বিশ্ব ঐতিহ্য হিসাবে স্বীকৃতি পেল।

শনিবার রাতে পোল্যান্ডের কার্লোতে ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটির বৈঠক বসে। ওই বৈঠকেই আমদাবাদ শহরকে বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত হয়।  ইউনেস্কোয় ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি রুচিরা কাম্বোজ টুইট করেন, “ঘোষণা করতে রোমাঞ্চিত বোধ করছি। আমদাবাদকে ভারতের প্রথম হেরিটেজ শহর হিসাবে এই মাত্র স্বীকৃতি দিল ইউনেস্কো।”

বিশ্ব ঐতিহ্যের শিরোপা পাওয়ার জন্য আমদাবাদ যাত্রা শুরু করেছিল ১৯৮৪ সালে যখন এখানকার ঐতিহ্যশালী কাঠামোগুলিকে সংরক্ষণ করার ব্যাপারে ফোর্ড ফাউন্ডেশন সমীক্ষা শুরু করে। ২০১১-এর মার্চে বিশ্ব ঐতিহ্যের শহর হিসাবে ইউনেস্কোর প্রাথমিক তালিকায় স্থান পায় আমদাবাদ। ওই তালিকায় দিল্লি ও মুম্বইও ছিল। কিন্তু ২০১৬-এর জানুয়ারিতে দিল্লি ও মুম্বইকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যায় আমদাবাদ,

প্যারিস, ভিয়েনা, কায়রো, ব্রুসেলস, রোম ও এডিনবরা-সহ বিশ্ব জুড়ে ২৮৭টি শহর বিশ্ব ঐতিহ্যের তকমাধারী। এর মধ্যে ভারতীয় উপমহাদেশে দু’টি শহর রয়েছে, নেপালের ভক্তপুর এবং শ্রীলঙ্কার গলে। উপমহাদেশের তৃতীয় শহর হিসাবে বিশ্ব ঐতিহ্য হল আমদাবাদ। ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ সংরক্ষিত ২৫টি কাঠামো আছে এই শহরে। এই শহরেই স্বাধীনতা আন্দোলন শুরু করেছিলেন মহাত্মা গান্ধী। ১৯১৫ থেকে ১৯৩০ পর্যন্ত এই শহরে বাস করতেন গান্ধীজি। প্রাচীন ঐতিহ্য রক্ষার পাশাপাশি উন্নয়নের পথেও এগিয়ে যাচ্ছে এই শহর। ভারতের অন্যতম প্রথম ‘স্মার্ট সিটি’ হতে চলেছে আমদাবাদ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন