হায়দরাবাদ : কিছুতেই ‘নিখুঁত’ হচ্ছে না। তাই এক্কেবারে ‘নিখুঁত’ ভাবে সেলফিটা তুলে বাহবা কুড়োতেই হবে। এই আকাঙ্ক্ষায় ট্রেনলাইনের আরও কাছে আরও কাছে যেতে গিয়েই ঘটে গেল বিপত্তি।

না প্রাণ যায়নি। কিন্তু মাথায় গুরুতর চোট, এই চোট নিয়েই সারা জীবন বাঁচতে হবে হায়দরাবাদের এক যুবককে।

সেলফি তোলার ভিডিওটা ভাইরাল হয়েছে বিভিন্ন মাধ্যমে।  তাতে দেখা যাচ্ছে যুবকের ডান হাত ট্রেন লাইনের দিকে তাক করা। তিনি হাসি হাসি মুখে তাকিয়ে আছেন মোবাইলের ক্যামেরার দিকে। পেছনে ট্রেন ধেয়ে আসছে। পাশ থেকে কেউ এক জন সাবধান বাণী শুনিয়ে ছিলেন ঠিকই। কিন্তু সেলফি মত্ত যুবক উলটে তাঁকেই অপেক্ষা করতে বলেন। কথায় আছে পিপীলিকার পাখা ওঠে মরিবার তরে। এ-ও বুঝি তেমনই। বিপদকে কুলো দিয়ে বরণ করলেন যুবক। মুহূর্তে ট্রেন এসে বেরিয়ে গেল পাশ দিয়ে। ট্রেন আসা মাত্রই ভিডিওটা আবছা হয়ে গেল।

ট্রেনের গতির সামনে নিজেকে টিকিয়ে রাখতে পারলেন না যুবক। হাওয়ার ধাক্কায় ছিটকে গেলেন তিনি। মাথায় গুরুতর আঘাত লাগল।

পরে বন্ধুদের বলেছেন, তিনি ট্রেনের গতি আর সেই সময়ের হাওয়ার দাপটের ব্যাপারটা আগে ঠিক বুঝতে পারেননি। ।

এই ভাবেই সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছে শয়ে শয়ে। তার মধ্যে ভারতে সেই পরিমাণটা সর্বাধিক। ২০১৪ সালের মার্চ থেকে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেলফিজনিত কারণে যত প্রাণ গিয়েছে বহু। তার মধ্যে ৬০%-ই হল ভারতে। বিশেষ করে ট্রেনের সঙ্গে সেলফি তোলা সব থেকে জনপ্রিয় একটা ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন