নয়াদিল্লি: বিতর্ক তৈরি হতে পারে, এই আন্দাজ করে পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন বিচারপতি ইউইউ ললিত। ফলে ফের পিছিয়ে গেল অযোধ্যা মামলার শুনানি। এর ফলে সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যা মামলার ভবিষ্যৎ তিমিরেই রয়ে গেল।

অযোধ্যার রামমন্দির-বাবরি মসজিদ বিতর্কের মূল মামলার তারিখ ঠিক করার জন্য বৃহস্পতিবার পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে শুনানি শুরু হয়। শুনানির শুরুতেই এক পক্ষের আইনজীবী রাজীব ধবন মনে করিয়ে দেন, যে পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ এই মামলার শুনানি করছে, তাদের মধ্যে অন্যতম ইউইউ ললিত এক সময় উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিংহের আইনজীবী ছিলেন। কল্যাণ সিংহের নাম অযোধ্যা মামলার সঙ্গে ওতপ্রোতোভাবে জড়িত। এ ক্ষেত্রে বিচারপতি ললিতের স্বার্থের সংঘাত থাকতে পারে বলে ইঙ্গিত করেন রাজীব।

এই যুক্তি শুনে নিজেকে এই মামলা থেকে সরিয়ে নেন বিচারপতি ললিত। যদিও তাঁর অপসারণের দাবি জানাননি ওই আইনজীবী। তিনি শুধু বিষয়টি তুলে ধরতে চেয়েছিলেন বলেই দাবি করেন।

আরও পড়ুন মেলার নিরাপত্তাকে আঁটোসাঁটো করতে গঙ্গাসাগরে তৈরি হচ্ছে তীর্থসাথী

সাংবিধানিক বেঞ্চের এক বিচারপতি সরে দাঁড়ানোয় ফের বাতিল হয়ে যায় শুনানি। আবার নতুন করে বেঞ্চ গঠন করে ২৯ জানুয়ারি শুনানি করা হবে। সে দিনই ঠিক হবে মূল মামলা কবে থেকে শুরু হবে। তা ছাড়া, এই মামলা সংক্রান্ত বহু নথি রয়ে গিয়েছে হিন্দি, উর্দু ও সংস্কৃত ভাষায়। সেই নথিগুলি এখনও পুরোপুরি ইংরেজিতে অনুবাদ করা সম্ভব হয়নি। ওই আইনজীবী আরও দাবি করেন, নথিগুলির ইংরেজিতে তর্জমা না হওয়া পর্যন্ত চূড়ান্ত শুনানি সম্ভব নয়।

সমস্ত নথির অনুবাদ কতদূর এগিয়েছে, এর পরেই সে সংক্রান্ত রিপোর্ট চেয়েছেন প্রধান বিচারপতি। মামলার পরবর্তী শুনানি ২৯ জানুয়ারি। সে দিনই জানা যাবে নতুন বেঞ্চে কোন কোন বিচাপতি থাকবেন। শুনানির নির্দিষ্ট কোনো দিন ঠিক করে দেওয়া হবে কি না, সেটাও ওই দিনই ঠিক করা হবে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন