এলাহাবাদের উড়ানে উঠতে দেওয়া হল না অখিলেশকে, হেনস্থার অভিযোগ

অখিলেশকে আটকানোর কারণ হিসেবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ যে যুক্তি খাড়া করেছেন, সেটাও বড়ো অদ্ভুত।

0
akhilesh yadav
বাধাপ্রাপ্ত হওয়ার পর প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে কথাবার্তায় অখিলেশ।

লখনউ: এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে নবনির্বাচিত ছাত্র সাংসদের শপথ অনুষ্ঠানে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু লখনউয়েই প্রশাসনের বাধার মুখে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব।

তাঁকে এলাহাবাদের বিমানে উঠতে না দেওয়ার কথা নিজেই টুইট করে জানিয়েছেন অখিলেশ।

মঙ্গলবার সকালে এলাহাবাদ যাওয়ার জন্য লখনউ বিমানবন্দর থেকে উড়ানে উঠতে যাচ্ছিলেন অখিলেশ। তখনই তাঁকে বাধা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

টুইট করে অখিলেশ জানান, “কোনো লিখিত নির্দেশিকা ছাড়াই আমাকে উড়ানে উঠতে বাধা দেওয়া হয়েছে। এই মুহূর্তে আমি লখনউ বিমানবন্দরে রয়েছি।”

তিনি আরও যোগ করেন, “একজন ছাত্রনেতার শপথ অনুষ্ঠানে যেতে বাধা দিচ্ছে বিজেপি। এর থেকেই প্রমাণিত, তারা কতটা ভয় পেয়ে রয়েছে।”

তবে অখিলেশকে আটকানোর কারণ হিসেবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ যে যুক্তি খাড়া করেছেন, সেটাও বড়ো অদ্ভুত। তিনি বলেন, “অখিলেশ বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে ছাত্রদের মধ্যে সংঘর্ষ লাগতে পারে। সেই কারণেই তাঁকে আটকানো হয়েছে।”

এর পর একটি বিবৃতি প্রকাশ করেন অখিলেশ। সেখানে তিনি বলেন, “পরিস্থিতি যদি এতটাই উদ্বেগের হত, তা হলে আমার নির্ঘণ্ট বদলে দিতে পারত পুলিশ। মানুষের নিরাপত্তার কথা আমাদের সব সময় ভাবতে হবে। কিন্তু তা বলে যদি যুব সম্প্রদায়ের সঙ্গে কথাবার্তা বলায় বাধা দেওয়া হয়, সেটা থেকে বোঝাই যাচ্ছে, বর্তমান সরকার ঠিক কতটা ভীত?”

আরও পড়ুন সাংসদের গাড়ির ধাক্কায় ভাঙল সংসদের ব্যারিকেড, জারি চরম সতর্কতা

এই ঘটনার পরেই অবশ্য উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে উত্তরপ্রদেশ-সহ গোটা দেশের রাজনীতি। এ দিন সংসদের দুই কক্ষেই বিক্ষোভ দেখানো শুরু করে বিরোধীরা।

রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় পথে নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন সপা সমর্থকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here