উৎসবের মরশুমে ফের সারা ভারত ব্যাঙ্ক ধর্মঘট!

0
Syndicate Bank
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: ২২ অক্টোবর দু’টি বৃহত্তর ব্যাঙ্ক ইউনিয়নের ডাকা সারা ভারত ব্যাঙ্ক ধর্মঘটের কারণে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হল। যদিও দেশের বৃহত্তম রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া (এসবিআই) জানিয়েছে, তাদের সিংহভাগ কর্মী ওই দু’টি ইউনিয়নের সদস্য না হওয়ায় পরিষেবায় ন্যূনতম প্রভাব পড়তে পারে।

অন্যান্য ব্যাঙ্ক, যেমন সিন্ডিকেট ব্যাঙ্ক এবং ব্যাঙ্ক অব মহারাষ্ট্র গ্রাহক পরিষেবা ব্যাহত হওয়ার উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

স্টক এক্সচেঞ্জের কাছে এক বিজ্ঞপ্তিতে সিন্ডিকেট ব্যাঙ্ক জানিয়েছে, “প্রস্তাবিত ধর্মঘটের দিন ব্যাঙ্কের শাখাগুলি সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। তবে এই ধর্মঘটের ফলে শাখা / অফিসগুলির কার্যকারিতা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে”।

বৃহত্তম ব্যাঙ্ক ইউনিয়ন অল ইন্ডিয়া ব্যাঙ্ক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন (এআইবিইএ) এবং ব্যাঙ্ক এমপ্লয়িজ ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া (বিইএফআই) ব্যাঙ্ক সংযুক্তিকরণ এবং আমানতের হার হ্রাসের প্রতিবাদ জানিয়ে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে।

তবে এআইবিইএ এবং বিইএফআইয়ের সঙ্গে মিলে ইউনাইটেড ফোরাম অব ব্যাঙ্ক ইউনিয়ন গঠনকারী তিনটি কর্মচারী ইউনিয়ন এবং চারটি অফিসার ইউনিয়ন মিলিয়ে অন্য সাতটি ব্যাঙ্ক ইউনিয়ন এই ধর্মঘটের অংশ নিচ্ছে না বলে জানিয়েছে।

স্টক এক্সচেঞ্জকে দেওয়া তিন দিন আগের একটি নোটিশে এসবিআই বলেছিল, “ধর্মঘটে অংশ নেওয়া ইউনিয়নগুলিতে আমাদের ব্যাঙ্ক কর্মীদের সদস্য সংখ্যা খুব কম, তাই ব্যাঙ্ক পরিচালনার উপর ধর্মঘটের প্রভাব সবচেয়ে কম হবে”।

এআইবিইএ এবং বিইএফআই জানিয়েছে, তারা ব্যাঙ্কিং কাজে নিয়মিত এবং দীর্ঘদিনের আউটসোর্সিং, ব্যাঙ্কিং শিল্পের বেসরকারিকরণের বিরোধিতা করছে এবং ক্লাক এবং সাব-স্টাফ নিয়োগের জন্য কঠোর পদক্ষেপের দাবি করেছে।

[ আরও পড়ুন: নতুন গাড়ির রেজিস্ট্রেশন কমল ১৩ শতাংশ ]

গত মাসে অফিসার ইউনিয়নগুলি ২৬ এবং ২৭ সেপ্টেম্বর দু’দিনের সারা ভারত ব্যাঙ্ক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল, যা পরে তা প্রত্যাহার করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here