Allahabad High Court

খবর অনলাইন ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দায়িত্ব পালনকারী কোভিডে মৃত আধিকারিকের পরিবারকে কমপক্ষে এক কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য দেওয়া উচিত। মঙ্গলবার একটি জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে এমনটাই পর্যবেক্ষণ এলাহাবাদ হাইকোর্টের।

উত্তরপ্রদেশের মহামারি পরিস্থিতি এবং কোয়ারান্টাই সেন্টারগুলোর অবস্থা নিয়ে দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার শুনানি করে হাইকোর্ট। সেখানেই কোভিডে মৃত নির্বাচনী আধিকারিকদের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত এই মন্তব্য করেন বিচারপতিরা।

বিচারপতি সিদ্ধার্থ ভার্মা এবং বিচারপতি অজিত কুমারের ডিভিশন বেঞ্চের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, “এমন নয় যে, কেউ স্বেচ্ছায় নির্বাচনের কাজে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু কেউ কেউ বিভিন্ন কারণে নির্বাচনের কাজে যোগ দিতে আপত্তি জানালেও তাঁদের বাধ্য করা হয়েছিল”।

কোভিডে মৃত নির্বাচনী আধিকারিকদের পরিবারের উদ্দেশে উত্তরপ্রদেশ সরকার আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করে গত শুক্রবার। বলা হয়, কোভিডে মৃত আধিকারিকদের পরিবারকে ৩০ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে। তবে হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, আর্থিক ক্ষতিপূরণের এই পরিমাণ “খুব কম”।

দুই বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ বলে, “পরিবারের রুটিরুজির সংস্থানকারী সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্য নির্বাচন কমিশন এবং রাজ্য সরকার তাঁদের নির্বাচনের কাজে যোগ দিয়ে বাধ্য করেছিল। এমনকী আরটি-পিসিআর পরীক্ষার ব্যবস্থাও রাখা হয়নি। ফলে মৃতদের পরিবারকে অবশ্যই এক কোটি টাকার সাহায্য করা দরকার”।

পর্যবেক্ষণে আরও বলা হয়, “মহামারি সম্পর্কে যথেষ্ট ওয়াকিবহাল ছিল নির্বাচন কমিশন এবং রাজ্য সরকার। তার পরেও শিক্ষক, পরিদর্শক এবং শিক্ষাকর্মীদের ঝুঁকির মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছিল। দেখা যাচ্ছে যে, মারাত্মক করোনাভাইরাসের হাত থেকে ভোটকর্মীদের বাঁচাতে পুলিশ এবং নির্বাচন কমিশন কিছুই করেনি”।

আশাপ্রকাশ করে হাইকোর্ট বলে, “রাজ্য নির্বাচন কমিশন এবং রাজ্য সরকার আর্থিক ক্ষতিপূরণের পরিমাণ বাড়াবে বলেই আমরা মনে করছি। শুনানির আগামী দিনে সে সম্পর্কে নিজেদের মতামত জানান”।

আরও পড়তে পারেন: ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শিখর ছুঁয়েছে, কমতে পারে আক্রান্তের সংখ্যা, বলছে কেমব্রিজ ট্র্যাকার

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন