কাশ্মীরের জন্য প্রাণ দিতে প্রস্তুত, লোকসভায় বললেন অমিত

এ দিন লোকসভায় জম্মু-কাশ্মীরের প্রস্তাব পেশ করেন অমিত।

0

নয়াদিল্লি: জম্মু-কাশ্মীরের জন্য ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পরের দিন উত্তপ্ত হয়ে উঠল লোকসভার অধিবেশন। সিদ্ধান্তের পক্ষে এবং বিপক্ষে নানা রকম যুক্তি দিলেন সরকার এবং বিরোধী পক্ষের নেতারা। এরই মধ্যে সব থেকে বেশি নজর কাড়ল অমিত শাহের মন্তব্য। তিনি বলেন উঠলেন, “কাশ্মীরের জন্য প্রাণ দিতেও তৈরি।”

এ দিন লোকসভায় জম্মু-কাশ্মীরের প্রস্তাব পেশ করেন অমিত। সেই সঙ্গে তিনি বলেন, “জম্মু-কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। এটা এখন থেকে ভারতের পাশাপাশি জম্মু-কাশ্মীরেরও সংবিধান।”

এর পরেই বিরোধীদের দিক থেকে আওয়াজ ওঠে, “তা হলে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের কী হবে? ওই অংশ নিয়ে আপনার বক্তব্য কী?” এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে অমিত বলেন, “আমি যখন জম্মু-কাশ্মীরের কথা বলছি, তখন পাক অধিকৃত কাশ্মীর এবং আকসাই চিনের কথাও বলছি।” অমিত কেন এত আগ্রাসী হয়ে উঠছেন, এই কথা জিজ্ঞেস করেন কংগ্রেসের দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী। জবাবে অমিত বলেন, “আমি আগ্রাসী হবই। আমরা কাশ্মীরের জন্য প্রাণ দিতেও তৈরি।”

আরও পড়ুন উত্তরাখণ্ডের গাড়োয়ালে দুটি পৃথক দুর্ঘটনায় মৃত ১৪

উল্লেখ্য, সোমবার রাজ্যসভায় রাষ্ট্রপতির একটি নির্দেশনামা পেশ করেন অমিত। সেই নির্দেশনামা পেশের সঙ্গে সঙ্গেই বাতিল হয়ে যায় ৩৭০ অনুচ্ছেদ। ফলে বিশেষ মর্যাদার তকমা হারায় জম্মু-কাশ্মীর। সেই সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরকে ভাগ করার একটি বিলও পেশ করা হয়। সেই বিলও সহজেই পাশ হয়ে যায়। ফলে এখন থেকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হয়ে যায়। একটি জম্মু-কাশ্মীর এবং অন্যটি লাদাখ।

এই সিদ্ধান্তের পরেই রাজ্যসভায় তুমুল হৈহট্টগোল হয়। যদিও বিকেলে বিবৃতি দিয়ে অমিত জানান, কাশ্মীরের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হওয়া বরাবরের জন্য নয়, বরং সঠিক সময় আবার রাজ্যের তকমা ফিরে পাবে কাশ্মীর।

সেই প্রসঙ্গেই এ দিন আলোচনা ছিল লোকসভায়। অধিবেশন শুরু থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। যদিও এই বিষয়ে সরকার এবং বিরোধী পক্ষের আলোচনা এখনও জারি রয়েছে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.