ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচনের সুর বেঁধে দিলেন অমিত শাহ

0
Amit Shah
লাতেহারের সভায় অমিত শাহ

ওয়েবডেস্ক: পাঁচ দফার ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচন শুরু হচ্ছে আগামী ৩০ নভেম্বর। তার আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দলীয় প্রচারের সুর বেঁধে দিলেন বৃহস্পতিবার।

এ দিন ঝাড়খণ্ডের লাতেহারের মনিকায় ভোটপ্রচারে অংশ নেন শাহ। জনসভায় তিনি স্পষ্ট করে দেন, পিছিয়ে পড়া শ্রেণির জন্য সংরক্ষণ কমিশন, অযোধ্যায় রাম মন্দির ইস্যুতেই প্রচারে কংগ্রেসকে ধাওয়া করবে বিজেপি।

শাহ এ দিন বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস-সহ আরও দুই দলীয় প্রার্থী রঘুপাল (মনিকা) এবং প্রকাশ রাম (লাতেহার)-এর হয়ে প্রচারে অংশ নেন। ওই সভা থেকে তিনি বলেন, পিছিয়ে পড়া শ্রেণির যুবসম্প্রদায়কে সর্বাধিক সুবিধা দিতে একটি কেন্দ্রীয় সংরক্ষণ কমিশন গঠন করা হবে।

শাহ স্পষ্টতই বলেন, “আমরা পিছিয়ে পড়া শ্রেণিকে যথাযথ সম্মান জানাতে ওবিসি কমিশন গঠন করেছি এবং এখন ওই শ্রেণির যুবকদের জন্য সুবিধা প্রসারিত করতে আমরা সংরক্ষণ কমিশন গঠন করতে চলেছি। আমরা এটি একটি নির্দিষ্ট শ্রেণির যুবকদের জন্য আর্থিক সুরক্ষা নিশ্চিত করার একটি সুযোগ হিসাবে দেখছি, যা কংগ্রেসের ৭০ বছরের শাসনকালে পিছিয়ে ছিল”।

লাতেহার এমনিতেই একটি সংরক্ষিত আসন। এ দিনের সভায় যুব সম্প্রদায়ের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতোই। যে কারণে সামঞ্জস্য রাখতে গিয়ে শাহ নিজের বক্তব্য শুরু করেন, ‘মেরে জিগর কে টুকরে যুবা মিত্র’ সম্বোধন মাধ্যমে।

একই সঙ্গে তিনি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেন, “রামমম্দির তৈরি হওয়া উচিত কি অনুচিত? সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে জবাব দিয়েছে। রামজন্মভূমিতে আকাশছোঁয়া একটা রামমন্দির তৈরি হবে”। শাহের মুখে এমন কথা শুনে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনিতে মুখরিত হয় ময়দান।

পাশাপাশি পৃথক রাজ্য ঝাড়খণ্ড গঠনে প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর প্রসঙ্গ টেনে আনেন শাহ। তিনি বলেন, “ঝাড়খণ্ডকে পৃথক রাজ্যের স্বীকৃতি দিতে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলজির সিদ্ধান্তে বরাবর বাধার সৃষ্টি করেছে কংগ্রেস। তা সত্ত্বেও তা আটকানো যায়নি”। এ প্রসঙ্গেই জম্মু ও কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহার করে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গঠনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা শোনা যায় শাহের বক্তব্যে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.