জেএনইউ তাণ্ডব: সহ্য করা হবে না, সতর্কতা কেন্দ্রের

Amit Shah
ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: রবিবার জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় (জেএনইউ) ক্যাম্পাসে ঢুকে মুখোশধারী গুন্ডাবাহিনী পড়ুয়া এবং অধ্যাপকদের উপর হামলা চালানোর পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহ দিল্লির পুলিশ কমিশনার অমূল্য পট্টনায়েকের সঙ্গে কথা বলেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক একটি টুইট বার্তায় জানিয়েছে, আধিকারিককে “প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ” করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে বলা হয়েছে, “কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেএনইউ হামলা নিয়ে দিল্লির পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেছেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। মাননীয় মন্ত্রী জয়েন্ট সিপি স্তরের একজন আধিকারিকের মাধ্যমে তদন্ত করারও নির্দেশ দিয়েছেন এবং শীঘ্রই একটি প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য বলেছেন”।

অন্য দিকে শিক্ষা মন্ত্রক এই হামলাকে অত্যন্ত নিন্দনীয় বলে অভিহিত করে বলেছে, এই ধরনের “সহিংসতা ও নৈরাজ্যমূলক আচরণ” সহ্য করা হবে না।

মন্ত্রক নিজের অফিসিয়াল হ্যান্ডেল থেকে টুইট করে জানিয়েছে, “মন্ত্রকের নজরে এসেছে যে আজ মুখোশধারী একদল দু্ষ্কৃতী জেএনইউ ক্যাম্পাসে ঢুকে পাথর ছুড়েছে, ভাঙচুর করেছে এবং পড়ুয়াদের উপর হামলা করেছে। এটি অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক এবং অত্যন্ত নিন্দনীয়, এই ধরনের সহিংসতা ও নৈরাজ্য সহ্য করা হবে না” ।

গত রবিবার সন্ধ্যায় মুখে কাপড় বেঁধে প্রায় ৫০ জনের একটি দল ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। তাদের হাতে ছিল ব্যাট, লাঠি। আন্দোলনকারীদের সভা চলাকালীন ওই দুষ্কৃতী দল ক্যাম্পাসে ঢুকে হামলা চালায়। পড়ুয়াদের মারধরের পাশাপাশি হস্টেলের ভিতরে ঢুকে ভাঙচুর চালানো হয়।

জেএনএসইউ সভানেত্রী ঐশী ঘোষের পাশাপাশি সাধারণ সম্পাদক সতীশ চন্দ্র যাদবও এই হামলায় আহত হয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত তাণ্ডবের ছবি এবং ভিডিওতে ঐশী ঘোষের মাথা থেকে রক্তক্ষরণ হতে দেখা গিয়েছে। ঐশী জানান, “মুখোশ পরা গুন্ডারা আমার উপর নৃশংস ভাবে আক্রমণ করেছে। আমার রক্তক্ষরণ হচ্ছে। আমাকে নির্মম ভাবে মারধর করা হয়েছিল”। তাঁকে এইমসের ট্রমা কেয়ার ইউনিটে ভরতি করা হয়।

[ আরও পড়ুন: ‘সাহসী পড়ুয়াদের কণ্ঠস্বরকে ভয় পাচ্ছে সরকার’, জেএনইউ হামলায় মন্তব্য রাহুল গান্ধীর ]

জেএনইউএসইউ এই হামলার জন্য বিজেপির ছাত্র সংগঠন এবিভিপিকে দায়ী করেছে। একটি টুইটার পোস্টে বলা হয়েছে, “এটি অজ্ঞাত এবিভিপি গুন্ডাবাহিনীর হামলা, যাদের সকলেই পড়ুয়া নয়, তারা নিজেদের মুখ মুখোশে ঢেকে রেখেছিল”। তবে পাল্টা দাবিও করে এবিভিপি

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.