কয়েক বছর পরেই বসবাসের অযোগ্য হয়ে যেতে পারে আন্দামান দীপপুঞ্জ!

0

ওয়েবডেস্ক: আগামী কয়েক বছরের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তন তার বড়োসড়ো ধাবা বসাতে চলেছে আন্দামান ও নিকোবর দীপপুঞ্জে। সে কারণে গোটা দীপপুঞ্জটিই বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠতে পারে। এমনই আশঙ্কার কথা জানানো হল জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে তৈরি করা একটি রিপোর্টে।

‘ইন্টারগভর্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ’ (আইপিসিসি) এই রিপোর্টটি তৈরি করেছে। সেখানে বলা হয়েছে, সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধির পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যাও ক্রমশ বাড়বে আন্দামানে।

এই রিপোর্টের মূল লেখক অঞ্জল প্রকাশ বলেন, “কয়েক বছরের মধ্যে আন্দামান, নিকোবর এবং মালদ্বীপকে খালি করে দিতে হবে। সাগরের জলস্তর ক্রমশ বাড়বে, ফলে মানুষকে সেখান থেকে পালিয়ে যেতে হবে।”

তিনি আরও বলেন, “গড় তাপামাত্রা যদি দু’ ডিগ্রির কমও বাড়ে তা হলেও ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে সাগরে। হিমাবহ গলবে আর সাধারণ মানুষ প্রভাবিত হবে। এই মানুষগুলোর ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে এখন থেকে কাজে নেমে পড়া উচিত।”

এই সংস্থার তরফে থেকে বলা হয়েছে, বিংশ শতক ধরে সাগরের জলস্তর গড়ে বেড়েছে ১৫ সেন্টিমিটার। কিন্তু এখন তা আরও দ্রুতগতিতে বাড়ছে। এই মুহূর্তে বছরে ৩.৬ মিলিমিটার করে বাড়ছে জলস্তর।

আরও পড়ুন নাম বদলে গেল রাজ্য পর্যটনের টুরিস্ট লজগুলির

প্রকাশের কথায়, “গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ যদি কমানো যায়ও তা হলেও ২১০০ সালের মধ্যে গড়ে ৩০ থেকে ৬০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত জলস্তর বাড়তে পারে। আর যদি গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন জারি থাকে তা হলে জলস্তর ১১০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে।”

রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, জলস্তর বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে জলে লবণাক্ততা বাড়বে। এর ফলে সেচ এবং গৃহস্থ কাজে বড়ো প্রভাব পড়তে পারে।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ঘূর্ণিঝড়ের প্রকোপ আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। ২০৫০ সালের মধ্যে প্রতি বছরই অন্তত একটা করে ভয়াল ঘূর্ণিঝড় উত্তর ভারত মহাসাগরে হানা দিতে পারে। সে কারণে সাধারণ মানুষ আর সমুদ্র উপকূলে থাকতে চাইবেন না বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে রিপোর্টে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here