দায়ী ভারতীয় আধিকারিকরা? মেহুল চোকসি প্রসঙ্গে চাঞ্চল্যকর ইঙ্গিত অ্যান্টিগার প্রধানমন্ত্রীর

নিউইয়র্ক: ভারতীয় ব্যবসায়ী মেহুল চোকসিকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার ব্যাপারে আশ্বাস দিলেও চাঞ্চল্যকর একটি মন্তব্য করেছেন অ্যান্টিগার প্রধানমন্ত্রী গ্যাস্টন ব্রাউন। তাঁর কথায়, ভারতীয় আধিকারিকদের ছাড়পত্রের জন্যই নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছিল মেহুলকে।

নিউইয়র্কে সংবাদসংস্থা এএনআইকে ব্রাউন বলেন, “মেহুল চোকসি একজন ঠগ। নিশ্চিত করে বলছি, তাকে আমরা ভারতের হাতে তুলে দেব। ওর বিরুদ্ধে যা যা অভিযোগ আছে, তার মুখোমুখি হতেই হবে। এটা শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার।”

সেই সঙ্গে ব্রাউন আরও বলেন, “যদি ভারতের গোয়েন্দারা এখানে এসে চোকসিকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান, তা-ও পারেন। আমাদের সরকার সব রকম সহযোগিতা করবে।”

পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকে ১৩,৫০০ কোটি টাকার আর্থিক তছরূপের পর নিজেকে বাঁচাতে চোকসি গা ঢাকা দেয় ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের ছোট্ট দেশ অ্যান্টিগায়। এই দ্বীপরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের কোনো প্রত্যর্পণ চুক্তি নেই। এর সুযোগ নিয়েই ঋণখেলাপিরা এই দেশে আশ্রয় নেয়।

আরও পড়ুন: পুজোর মুখে বন্যা পরিস্থিতি মালদায়, দুর্গত অসংখ্য

তবে মেহুলকে আশ্রয় দেওয়া প্রসঙ্গে ব্রাউন যেটা বলেছেন সেটাও কম চাঞ্চল্যকর কিছু নয়। তিনি বলেন, “আমাদের আধিকারিকরা ভারতীয় আধিকারিকদের সঙ্গে সবিস্তার আলোচনা করার পরে তাঁকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়। এর দায় ভারতীয় আধিকারিকদের নিতেই হবে।”

এর আগেও অবশ্য তাকে ভারতে ফেরানোর তোড়জোড় শুরু হয়েছিল। কিন্তু চোকসি জানিয়েছিল ভারতে ফিরলে তাকে গণপিটুনির শিকার হতে হবে।

তবে তাকে প্রত্যর্পণে ভারত সরকারের চাপ বাড়তে থাকায় গত জুন মাসে হীরে ব্যবসায়ী নিজেই বম্বে হাইকোর্টে হলফনামা দিয়ে জানায়, সে আপাতত অ্যান্টিগার নাগরিক।

যদিও অ্যান্টিগার প্রধানমন্ত্রীর এ দিনের কথার পর মনে হচ্ছে কিছু দিনের মধ্যেই সম্ভবত ভারতে ফেরানো হবে মেহুল চোকসিকে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.