নয়াদিল্লি: বিমানযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা তোলার শর্ত হিসাবে শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রীকে চিঠি লিখতে বাধ্য হলেন বিতর্কিত শিবসেনা সাংসদ রবীন্দ্র গায়কোয়াড়।  

এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানকর্মীকে ২৫ ঘা জুতো মেরেও ঝাল মেটেনি শিবসেনা সাংসদের। এই ঘটনায় তিনি তো অনুতপ্ত ননই, উলটে বৃহস্পতিবার লোকসভায় তিনি বলে দেন, তিনি কোনো ভুল করেননি। তিনি সংসদে ক্ষমা চাইছেন, কিন্তু বিমানকর্মীর কাছে ক্ষমা চাওয়ার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। সাংসদকে অপমান করার জন্য বিমানকর্মীর বিরুদ্ধে ওই বিমানসংস্থা এখনও কোনো পদক্ষেপ করল না কেন, সেই বিষয়েই সংসদে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন গায়কোয়াড়। গায়কোয়াড়কে সমর্থন করে আরেক শিবসেনা নেতা এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত গীতে বলেন, অভিযুক্ত সাংসদের ওপর থেকে বিমানযাত্রার নিষেধাজ্ঞা অবিলম্বে তুলে নিতে হবে। এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রী অশোক গজপতি রাজু স্পষ্ট জানিয়ে দেন, যাত্রী সুরক্ষা এবং কর্মীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই নিষেধাজ্ঞা তোলা যাবে না। শেষমেষ স্পিকার সুমিত্রা মহাজনের হস্তক্ষেপে দু’পক্ষের মধ্যে আলাপ আলোচনা হয়। ক্ষমা চেয়ে বিমানমন্ত্রীকে একটি চিঠি দেন সাংসদ। নিষেধাজ্ঞা তোলার প্রাক শর্ত ছিল এই চিঠি। এ কথা কেন্দ্রের তরফ থেকে আগে জানানো হলেও এত দিন ক্ষমা প্রার্থনা করে সরকারকে চিঠি দেওয়ার কোনো তাগিদই দেখাননি গায়কোয়াড়।

আরও পড়ুন; সাত দিনে সাত বার চেষ্টা, উড়ান-ভাগ্য খোলেনি চটিপেটানো এমপির

বৃহস্পতিবার শিবসেনা সাংসদ যা বললেন, তার সঙ্গে সাংসদের নিজের দেওয়া আগের বয়ানেরই অমিল রয়েছে যথেষ্ট। এ দিন তিনি বলেন, এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানকর্মী তাঁর কলার ধরে টেনেছিলেন। ঘটনার দিন এমন কিছুই বলতে শোনা যায়নি তাঁকে। গায়কোয়াড় বলেন, প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে  বিমানকর্মী খারাপ মন্তব্য করায় তিনি মেজাজ হারান। অথচ সাংসদের সে দিনের আচরণে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি উষ্মাই প্রকাশ পেয়েছিল বেশি। লোকসভায় ক্ষমা চাইলেও এয়ার ইন্ডিয়া কর্মীর কাছে তিনি ক্ষমা চাইবেন না, জানিয়েছেন গায়কোয়াড়। সাংসদ আরও বলেন, তিনি একজন স্কুল শিক্ষক এবং বিনম্রতাই তাঁর স্বভাব। গণমাধ্যম ঘটনাটির ভুল ব্যাখ্যা দিচ্ছে বলেই অভিযোগ করেন তিনি। 

অন্য দিকে ৬০ বছরের বিমানকর্মীকে চটিপেটা করার পর থেকে দেশের প্রায় সমস্ত বিমানসংস্থাই গায়কোয়াড়ের বিমানযাত্রা নিষিদ্ধ করেছে। বার কয়েক নামের একাধিক পরিবর্তন করেও টিকিট বুক করতে পারেননি গায়কোয়াড়। কখনও নামের আগে যোগ করেছেন ‘প্রফেসর’, কখনও বা বাড়তি কোনো অক্ষর। পরে অবশ্য সাফাই দিয়েছেন, তাঁর নাম ভাঁড়িয়ে অন্য কেউ করেছে এই সব। বলাই বাহুল্য, এত কিছু সত্ত্বেও নিজের দলকে তাঁর পাশে পেয়েছেন সাংসদ। তাঁর ওপর থেকে বিমানযাত্রার নিষেধাজ্ঞা তোলার দাবি না মানলে মুম্বই-এ বিমান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হবে, এমন হুমকিও এসেছে শিবসেনার তরফ থেকে। মন্ত্রী গজপতি রাজু নিষেধাজ্ঞা জারি রাখার সিদ্ধান্তে অনড় থাকলে সহকর্মী অনন্ত গীতে জানান, এর প্রতিবাদে আগামী সোমবারের বিজেপি-র নেতৃত্বে জোট সঙ্গীদের বৈঠক এবং প্রধানমন্ত্রীর নৈশভোজ তাঁরা বয়কট করবেন। লোকসভা স্পিকার সুমিত্রা মহাজনের উদ্যোগে দু’পক্ষ বোঝাপড়ায় আসতে রাজি হয়। তারই ফলস্বরূপ কেন্দ্রীয় বিমানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে গায়কোয়াড় জানান, “গত ২৩ মার্চ, ২০১৭-তে ৮৫২ নম্বর উড়ানের ১এফ আসনে যে দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ঘটে, তাঁর জন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করছি।…আমি নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে অনুরোধ করছি। কোন পরিস্থিতিতে এই ঘটনা ঘটেছিল, সে ব্যাপারে তদন্ত হোক।” 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here