ভারতের কৃষি উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সহযোগিতার হাত আর্জেন্তিনার

0
নিজস্ব ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় কৃষিক্ষেত্রের উন্নয়নে আরও বেশি হাত প্রসারিত করছে জি-২০ অন্তর্ভুক্ত রাষ্ট্র তথা লাতিন আমেরিকার অন্যতম দেশ আর্জেন্তিনা। ভারতের কৃষিক্ষেত্রে অংশীদার হিসাবে কাজ করে কৃষিপণ্য উৎপাদন বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা নিতে চলেছে ফুটবলের রাজপুত্র দিয়াগো মারাদোনার দেশ।

বর্তমানের কৃষিকাজ অনেকটাই প্রযুক্তিনির্ভরতার দিকে ঝুঁকে পড়েছে। ভারতের কৃষিক্ষেত্রে অংশগ্রহণের মাধ্যমেই সেই সমস্ত প্রযুক্তিগত ব্যবস্থার আদানপ্রদানে আগ্রহ দেখাচ্ছে আর্জেন্তিনা। সে দেশের কৃষিমন্ত্রী লুইস এটচেভেয়ার সম্প্রতি এসেছিলেন ভারত সফরে। গত সপ্তাহের ওই সফরেই তিনি আর্জেন্তিনার আগ্রহের কথা প্রকাশ করেন বলে সূত্রের খবর।

কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন লুইস। গত ফেব্রুয়ারি মাসেই ভারত সফরে এসেছিলেন আর্জেন্তিনার রাষ্ট্রপতি মরিসিও ম্যাক্রি। সে সময়েও কৃষিক্ষেত্রের উন্নয়নে বেশ কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় দু’দেশের মধ্যে। সেই সমস্ত চুক্তির বিষয়ে যাবতীয় খোঁজখবর নেন লুইস। ওই চুক্তির একটি অন্যতম পর্বে বলা হয়েছে, মসৃণ ভাবে কৃষি পণ্যগুলিকে বাজারে প্রবেশে সুবিধা করে দিতে বহুবিধ প্রোটোকলের সমাপ্তির দিকে এগনো অবশ্যই উচিত।

ভারত সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করে, গত ফেব্রুয়ারিতে রাষ্ট্রপতি ম্যাক্রি ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ওই চুক্তির পর ভারতের বাজারে আর্জেন্তিনা থেকে লেবু এবং চিয়া বীজের প্রবেশাধিকার মিলেছে। প্রায় ১৩ বছরের দ্বিপক্ষীয় আলোচনার এই উদ্যোগের বাস্তবায়ন সম্ভব হয়েছে।

একই সঙ্গে এ কথাও ঘোষণা করা হয়, আর্জেন্তিনার সঙ্গে প্রথমবারের মতো যে কৃষি সংযুক্তি হয়েছে, তা সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে ফলপ্রসূ হতে শুরু করবে।

[ লোকসভায় পাশ হল কোম্পানিজ (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল ]

প্রসঙ্গত, কৃষি ও সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলির উপর কয়েক দশকের পুরনো দক্ষতাকে সঙ্গী করেই আর্জেন্তিনা ভারতের কৃষিক্ষেত্রের আধুনিকীকরণে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হতে চায়। আর্জেন্তিনা বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম প্রধান কৃষিপণ্য রফতানিকারক দেশ। আর্জেন্তিনার জৈব ফসল উৎপাদনশীল জমির পরিমাণ প্রায় ৩,০৬১,৯৬৫ হেক্টর। যা গোটা বিশ্বের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার পরে এবং আমেরিকার আগের স্থান দখলে সাহায্য করছে আর্জেন্টিনাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.