karnataka elections modi siddaramaiah

ওয়েবডেস্ক: গত বছর সেপ্টেম্বরের কথা। তখনও কর্নাটকে ভোটের দামামা বাজেনি। কিন্তু তখনই ভোটের প্রেক্ষাপট তৈরি করে দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। কালবুরগি সফরে গিয়ে জাভড়েকর বলেছিলেন, “কর্নাটকে দেড়শোর বেশি আসন জিতবে বিজেপি।”

এর পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে ‘মিশন ১৫০’ নিয়ে জোরদার প্রচার শুরু করে বিজেপি। প্রচারসভায় হোক বা টুইটারে হ্যাশট্যাগ, সবেতেই একটাই কথা, ‘মিশন ১৫০।’

কিন্তু নির্বাচন যত এগিয়ে এল তত যেন ‘মিশন ১৫০’ থেকে ক্রমশ পিছিয়ে এল গেরুয়া শিবির। দিল্লির দুই বিজেপি নেতার মতে, কর্নাটক জয়ের ব্যাপারে দল আশাবাদী হলেও, ‘মিশন ১৫০’ এখন ‘মিশন ইম্পসিবল’ হয়ে গিয়েছে বিজেপির কাছে।

কিন্তু ‘মিশন ১৫০’ নিয়ে চুপ হয়ে যাওয়ার পেছনে একটি কারণ তুলে ধরেছে বিজেপি নেতৃত্ব।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিজেপির এক নেতা বলেন, “আমরা গুজরাতে জিতেছিলাম কিন্তু বিরোধীরা এটাকে আমাদের হারের তকমা দিল। কারণ আমরা গুজরাতে নিজেদের জন্য বেশি লক্ষ্য স্থির করেছিলাম। কর্নাটকে এ রকম কিছু হোক সেটা আমরা চাই না।”

উল্লেখ্য, গুজরাত নির্বাচনেও ১৫০ আসন জেতার লক্ষ্য নিয়ে নেমেছিল বিজেপি। কিন্তু আদতে দেখা যায়, ১৮২-এর মধ্যে ৯৯টা জিতে শেষ করে তারা।

তবে এ রকম কোনো ‘মিশন ১৫০’-এর লক্ষ্য কখনোই স্থির করা হয়নি বলে দাবি করেন কর্নাটক থেকে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ জিভিএল নরসিংহ রাও। তাঁর মতে, বিজেপি কর্মীরা যাতে অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী না হয়ে পড়েন সে জন্য এ রকম লক্ষ্যের কথা বলা হয়। তাঁর মতে, “উচ্চ লক্ষ্যমাত্রা স্থির করার জন্য রাজ্য নেতৃত্বকে বরাবর উৎসাহ দেয় দল। কিন্তু আমরা এই ব্যাপারে কখনোই সরকারি ভাবে কোনো বক্তব্য রাখিনি।

বেশিরভাগ জনমত সমীক্ষার দাবি এ বার ত্রিশঙ্কু হতে চলেছে কর্নাটক বিধানসভা। তবে বিজেপি মনে করছে প্রচারের শেষ দফায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যে জোরদার প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন, তাতে ভালো কিছু ফলের আশা করতেই পারে তারা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here