লখিমপুর খেরি কাণ্ডে গ্রেফতার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পুত্র আশিস মিশ্র

0
Lakhimpur Kheri Case
কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পুত্র আশিস মিশ্র।

লখনউ: টানা ১২ ঘণ্টা ধরে জেরা করার পর গ্রেফতার করা হল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রের পুত্র আশিস মিশ্রকে। তাঁর বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশের লখিমপুর খেরিতে গাড়ি চালিয়ে বিক্ষোভরত কৃষকদের পিষে মারার অভিযোগ রয়েছে।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশ বলেছে, আশিস তাদের প্রশ্নে সঠিক জবাব দেননি। বরাবরই সব কিছু এড়িয়ে যাওয়ার মতো উত্তর দিয়েছেন। তিনি পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতা করেননি।

ঘটনার পাঁচ দিন পরে আশিসকে গ্রেফতার করা হল। তাঁর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ রয়েছে, যে অভিযোগ থাকলে সাধারণত সঙ্গে সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়। শুধু তা-ই নয় তাঁরা বাবার পদমর্যাদার জন্য আশিসের সঙ্গে ভিআইপি আচরণ করা হয়েছে বলেও প্রশ্ন উঠেছে। এমনকি এক দিন আগে আশিস পুলিশি তলব এড়িয়ে গিয়েছিলেন।

গতকাল তথা শুক্রবার উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিআইজি আশিসের জন্য তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করেছিলেন। কিন্তু আশিস আসেননি। শনিবার গভীর রাত পর্যন্ত আশিসকে জেরা করেন তিনি। তার পর সংবাদ মাধ্যমকে এড়ানোর জন্য আশিসকে পিছনের দরজা দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের আচরণে প্রশ্ন

তবে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের আরও একটা আচরণেও প্রশ্ন উঠেছে। তারা আশিসকে সমন পাঠিয়েছিল ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬০ ধারা অনুসারে, যাতে সাক্ষীদের উপস্থিতির কথা বলা হয়েছে। অর্থাৎ আশিসকে অভিযুক্ত হিসাবে উপস্থিত থাকতে বলেনি উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্র বলেছিলেন, তাঁর ছেলে শরীর খারাপের জন্য গতকাল উপস্থিত থাকতে পারেননি, আজ শনিবার পুলিশের সামনে উপস্থিত হবেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর হত্যায় অভিযুক্ত পুত্রের জন্য শনিবার তাঁর হাজিরা এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

উত্তরপ্রদেশকে সুপ্রিম কোর্টের ভর্ৎসনা

লখিমপুর খেরির ঘটনা নিয়ে দেশ জুড়ে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। উত্তরপ্রদেশ সরকারকে তার কর্তব্য সম্পর্কে সুপ্রিম কোর্ট স্মরণ করিয়ে দেওয়ার এক দিন পরেই গ্রেফতার করা হল মন্ত্রীর পুত্রকে। উত্তরপ্রদেশ সরকারকে সুপ্রিম কোর্ট বলেছিল, যে-ই ঘটনায় জড়িত থাকুক না কেন, আইনকে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই হবে।

উত্তরপ্রদেশ সরকারকে ভর্ৎসনা করে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এন ভি রমনা বলেন, “আপনারা কী বার্তা পাঠাচ্ছেন? এমনকি স্বাভাবিক অবস্থাতেও…পুলিশ সঙ্গে সঙ্গে ছুটে যাবে না এবং অভিযুক্তকে গ্রেফতার করবে না? যে পথে সব হওয়া উচিত ছিল সেই পথে হয়নি। মনে হচ্ছে মুখেই যা বলা হচ্ছে, কাজে কিছুই করা হচ্ছে না।”

কৃষকদের এফআইআর-এ আশিসের নাম

লখিমপুর খেরির ঘটনা নিয়ে কৃষকরা যে এফআইআর দায়ের করেন, তাতে আশিস মিশ্রের নাম আছে। তাঁরা অবিলম্বে আশিসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছিলেন।

এফআইআর-এ বলা হয়েছে, কালো পতাকা নিয়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভের সময় স্লোগানরত কৃষকদের উপর দিয়ে তিনি গাড়ি চালিয়ে দেন। ঘটনায় চার কৃষক-সহ আট জন প্রাণ হারান।

তবে ওই এসইউভি গাড়িটি যে তাঁর সে কথা স্বীকার করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পুত্র বলেছিলেন, তিনি ওই গাড়িতে ছিলেন না।

দুই ব্যক্তি ধৃত

মামলাটি সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার পর লব কুশ ও আশিস পাণ্ডে নামে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ জানায়, যে গাড়ি একজন সাংবাদিক ও কৃষকদের চাপা দিয়েছে সেই গাড়িতে ওই দু’ জন ছিলেন।

লখিমপুর খেরি নিয়ে কোনো চাপে কিছু করার কথা অস্বীকার করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেছিলেন, তাঁর সরকার “অভিযোগের ভিত্তিতে কাউকে গ্রেফতার করবে না”। ঘটনায় যে সব পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের কাছে ছুটে যাওয়া বিরোধী নেতাদের আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “তাঁরা কেউই শুভেচ্ছা-দূত নন।”       

আরও পড়তে পারেন

অ্যাকশনের রিয়্যাকশন! লখিমপুর খেরিতে বিজেপি কর্মীদের মৃত্যু সম্পর্কে মন্তব্য কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েতের

লখিমপুর খেরির হিংসাত্মক ঘটনার অন্যান্য প্রতিবেদন পড়ুন এখানে: লখিমপুর খেরি হিংসা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন