খবরঅনলাইন ডেস্ক: তদন্তমূলক খবর করার জন্যই পরিচিত ছিলেন তিনি। বর্তমানে গোরু পাচার চক্র নিয়েও তদন্তমূলক খবর করে যাচ্ছিলেন তিনি। কাকতালীয় ভাবে এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরেই গ্রেফতার করা হল তাঁকে। মাঝরাতে বাড়িতে পুলিশি তল্লাশি হল। সেই শোক সহ্য করতে না পেরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল বাবার।

গত কয়েক দিন ধরেই গোরু পাচার চক্রের ওপরে খবর করে যাচ্ছিলেন অসমের স্থানীয় সংবাদপত্রের সাংবাদিক রাজীব শর্মা। তিনি ধুবুরি প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক।

গত বুধবার রাত ২টোয় রাজীব শর্মার বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। তোলাবাজির অভিযোগ এনে তাঁকে ধরে নিয়ে যায় তারা। শোক সহ্য করতে না পেরে বাড়িতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হন তাঁর ৬৪ বছরের বাবা সুধীন শর্মা। বাড়িতেই মৃত্যু হয় তাঁর।

বৃহস্পতিবার সকালে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পেয়ে যান রাজীব। এর পর বাড়ি ফিরে দেখেন মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন সুধীন। ওই দিন বিকেলে সাংবাদিক বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে বাবার শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন রাজীব।

ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসতেই প্রবল চাপে পড়ে রাজ্য সরকার। তৎক্ষণাৎ অসমের স্বরাষ্ট্র দফতরের নির্দেশে বদলি করা হয় ধুবুরির পুলিশপ্রধান যুবরাজকে। ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোওয়ালের হস্তক্ষেপ দাবি করেছে গুয়াহাটি প্রেস ক্লাব।

তদন্তের নামে রাজীব শর্মাকে যাতে আর হেনস্থা না করা হয়, সে দাবি করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে।

ধুবুরির বন দফতরের আধিকারিক বিশ্বজিৎ রায়ের অবশ্য অভিযোগ, ওই সাংবাদিক তাঁর থেকে ৮ লক্ষ টাকা দাবি করেন, অন্যথা গোরু পাচার চক্রের ভুয়ো খবরে তাঁকে জড়িয়ে দেবেন বলে হুমকি দেন।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন