ট্রেজারিতে মজুত রাখা গন্ডার-খড়্গ পুড়িয়ে বিশ্ব গন্ডার দিবস পালিত অসমে

0
খড়গ-দহন অনুষ্ঠানে অসমের মুখ্যমন্ত্রী।

অরূপ চক্রবর্তী: গুয়াহাটি

২২ সেপ্টেম্বর, বিশ্ব গন্ডার দিবস (World Rhino Day) । আর এ দিন সবাইকে তাক লাগিয়ে অভূতপূর্ব কাজ করল অসম সরকার। দাহ করা হল গন্ডারের ২৪৭৯টি খড়্গ।

বুধবার উজান অসমের বোকাখাতে বিশ্ব ঐতিহ্য গন্ডারের খড়্গ কার্যসূচি রূপায়ণ করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী (Assam CM) ড. হিমন্ত বিশ্ব শর্মার (Dr. Himanta Biswa Sarma) উপস্থিতিতে এ হেন কর্মসূচির বাস্তব রূপ প্রত্যক্ষ করেন রাজ্যবাসী । অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বন ও পরিবেশ দফতরের মন্ত্রী পরিমল শুক্লবৈদ্য, কৃষিমন্ত্রী অতুল বরা, স্বাস্থ্যমন্ত্রী কেশব মহন্ত প্রমুখ।

এতে যোগ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ড. হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, মানুষের মধ্যে ভ্রান্ত ধারণা ও  অন্ধবিশ্বাস দূর করতে এ কাজ করা হয়েছে। গন্ডার হত্যা করার পরিবর্তে এই শান্ত এই জীবকে বেঁচে থাকতে দিন। এটা অসমের গর্ব।

এ ভাবেই বিশ্ববাসীর প্রতি বার্তা ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, গন্ডারের খড়্গ নিয়ে অসমের মানুষ কোনো দিন ব্যবসা করবে না। পাশাপাশি গন্ডারের খড়্গ থেকে ঔষধ উৎপাদন হওয়ার বিষয়টি আমরা বিশ্বাস করি না। মৃত গন্ডারের খড়্গ আমাদের জন্য সম্পদ হতে পারে না বলে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি বলেন, বেঁচে থাকা গন্ডার অসমের গৌরব।

পোড়ানো হচ্ছে গন্ডারের খড়গ।

গন্ডারের খড়্গ দহন করতে আজকের দিনটি তিনি কেন বেছে নিলেন? এ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মৃত গন্ডারের খড়্গ নিয়ে ব্যবসাবাণিজ্য এখানে চলবে না। কেননা এগুলো রাজ্যের বিভিন্ন ট্রেজারিতে থাকলে চোরাপথে বিক্রি হতে পারে। শুধু তা-ই নয়, মৃত গন্ডারের খড়্গ ট্রেজারিতে রাখা হতে পারে, এই আশঙ্কা করেই এ হেন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, এতে অসম সরকার বদনামী হতে পারে। বিশ্বের সব চাইতে দ্বিতীয় বৃহত্তম খড়্গটি আমাদের হাতেই রয়েছে। তবে এর পর গন্ডারের খড়্গও সংরক্ষণ করতে রাজ্য সরকার যাবতীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

দহন করার জন্য ৩২টি বাক্সে খড়্গগুলো আনা হয় বলে জানা গেছে। ১৯৮০ সাল থেকে রাজ্যের বিভিন্ন ট্রেজারিতে এই খড়্গগুলো ছিল। রাজ্য সরকার বন্যপ্রাণী চোরাকারবারির ক্ষেত্রে কোনো সহনশীল নীতিই গ্রহণ করছে না, এই মন্তব্য করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, অসমে ১৯৯৯ সালে ১৬৭২টি গন্ডার ছিল। কিন্তু ২০১৮ সালে সেই সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৬৫২।

আরও পড়তে পারেন

চিনা বিনিয়োগকারীদের আটকাতে এলআইসি-র শেয়ারে লক্ষ্মণরেখা টানতে পারে ভারত

কোভিডে মৃত প্রত্যেকের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য, সুপ্রিম কোর্টে জানাল কেন্দ্র

দৈনিক সংক্রমণ বাড়লেও পুজোর মুখে মোটের ওপর স্থিতাবস্থা পশ্চিমবঙ্গের করোনাগ্রাফে

ধন্ধুমার কাণ্ড! ঘন ঘন লোডশেডিং, অস্বাভাবিক বিদ্যুৎ বিলের প্রতিবাদে জয়নগরে রাস্তা অবরোধ

আমি না জিতলে অন্য কেউ মুখ্যমন্ত্রী হবেন, আমাকে রাখতে ভোট দিন: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন